Home » শিক্ষা » হুমকির মুখে কারিগরি মেডিকেল টেকনোলজি শিক্ষা

হুমকির মুখে কারিগরি মেডিকেল টেকনোলজি শিক্ষা

নিউজ ডেস্ক ।।   

আইন অনুসারে বিটিইবি থেকে পাশকৃত সকল মেডিকেল টেকনোলজিস্ট বৈধ এবং তাদের কাজের ক্ষেত্রে তারা দক্ষ।
কারিগরি ও বৃত্তি মূলক শিক্ষা প্রসার ঘটাতে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড ২০০৫-৬ সালে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের অধীনে মেডিকেল টেকনোলজি এবং নাসিং কোর্স চালু করেছে। বর্তমান সরকার কারিগরি ও বৃত্তি মূলক শিক্ষার প্রতি বেশি জোর দিয়েছেন, তারপরও ২০১৮ সালের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে কারিগরি থেকে পাশকৃত মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের বজ্ঞিত করে নিয়োগ প্রকাশ করে, সেখানে বজ্ঞিত হওয়ার কারনে বিটিইবি থেকে পাশকৃত ছাত্র/ছাত্রীরা বাদি হয়ে মহামান্য হাইকোর্টের দারস্থ হয়ে একটি রিট করে, দীর্ঘ দিনের শুনানি শেষে মহামান্য হাইকোর্ট বিটিইবি মেডিকেল টেকনোলজিস্টগন সরকার বেসরকারি সকল চাকরির ক্ষেত্রে বৈধ হিসাবে আদেশ দেন। রাষ্টীয় চিকিৎসা অনুষদ থেকে পাশকৃত ছাত্র-ছাত্রীদের পক্ষে থেকে রিভিউ করা হলেও রিভিউ খারিজ করে হাইকোর্টের রায় বহাল রাখে এবং আগামীতে মেডিকেল টেকনোলজি কোর্স স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় এবং শিক্ষা মন্ত্রনালয় সম্মনয়ক কমিটির মাধ্যমে পরিচালনা করবে বলে আদেশ দেন। মহামান্য হাইকোর্ট সুপ্রিম কোর্টের আদেশ মেনে নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে গত ২৪ মার্চ ২০১৮ ইং তারিখে নন মেডিকেল নিয়োগ গেজেট প্রকাশ করার পর থেকে বিটিইবি এমটিগন স্বাধীন ভাবে বিভিন্ন প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ, হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে সুনামের সহিত জনগনের স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে আসছি। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে কারিগরি শিক্ষাবোর্ড হতে পাশকৃত মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট ও নার্সিংদের নিয়ে একটি কুচক্রী মহল পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের অপব্যাখ্যা করে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে, যার ফলে প্রাইভেট সেক্টরে বিটিইবি এমটিগন বিভিন্ন প্রশ্নের সম্মুখীন ও প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হচ্ছে। কিম্তু মুলত বিষয়টি হচ্ছে মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী “One Umbrella Concept” বাস্তবায়নে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে আন্তঃমন্ত্রণালয়ের কমিটি গঠন করা হয় এবং সেই কমিটি স্বাস্থ্য সেক্টরের জটিলতা নিরসনের লক্ষ্যে “One Umbrella Concept” বাস্তবায়নের জন্য একটি সিদ্ধান্তে উপনীত হয়। এ সিদ্ধান্তে বলা হয় যে,পরবর্তী সেশন হতে কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের আওতাধীন সকল মেডিকেল টেকনোলজি ও নার্সিং সংক্রান্ত কোর্স পরিচালিত হবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মাধ্যমে। মেডিকেল টেকনোলজি ও নার্সিং কোর্স নিয়ে জটিলতা নিরসনের লক্ষ্যে এমন একটি সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয় এবং সেটি বাস্তবায়নের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সুতরাং কারিগরি শিক্ষাবোর্ড হতে পাশকৃত মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট, নার্স এবং বর্তমানে রেজিষ্ট্রেশনকৃত অধ্যায়নরত ছাত্রছাত্রীরা অবশ্যই বৈধ।
এমতাবস্থায় আওয়ামী মেডিকেল টেকনোলজিস্ট পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে অধ্যাপক ডাঃ এম এ এনায়েত মুকুল অতিরিক্ত মহাপরিচালক (স্বাস্থ্য শিক্ষা) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে যোগাযোগ করা হলে উনি বিটিইবি এমটিদের উদ্দেশ্য জানাই তারা সরকারি বেসরকারি চাকুরীর ক্ষেত্রে বৈধ মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট।
একটি কুচক্রীমহলের ভিত্তিহীন অপপ্রচারকে কেন্দ্র করে বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতিতে পড়েছে বিটিইবি মেডিকেল টেকনোলজিস্ট জাতি, বাংলার কন্ঠস্বর এর পক্ষে থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী মেডিকেল টেকনোলজিস্ট পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব, শামীম শাহ সাথে যোগাযোগ করা হলে উনি আমাদের জানান এই পরিস্থিতি থেকে উত্তোরনের জন্য সবাইকে সচেতন এবং সঠিক তথ্য জানানো দরকার মনে করে তিনি, সবাইকে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া প্রয়োজন।

পাঠকের মতামত...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*