Home » সর্বশেষ সংবাদ » করোনা ভাইরাস আতংকে স্বাভাবিক জীনযাত্রা ব্যাহত

করোনা ভাইরাস আতংকে স্বাভাবিক জীনযাত্রা ব্যাহত

ছাতক প্রতিনিধি //
সুনামগঞ্জের ছাতকে করোনা ভাইরাস আতংকে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় চরম বিপর্যয় নেমে এসেছে। কি করলে নিজের এবং পরিবারের লোকজনদের নিরাপদ রাখা যাবে এমন ভাবনাই ঘুরপাক খাচ্ছে এখানের মানুষের মধ্যে। করোনা ভাইরাস সংক্রামক থেকে দূরে থাকার পরামর্শমুলক সরকারী-বেসরকারী প্রচার-প্রচারনা, টেলিভিশনের সংবাদ, টকশো এবং সামামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে দেয়া ষ্ট্যাটাস সাধারণ মানুষকে বিচলিত করে তুলেছে। বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বিভিন্ন ধরনের আদেশ উপদেশ এখন সাধারণ মানুষকে কিংকর্তব্যবিমুঢ় করে তুলেছে। কতদিন এ অবস্থা চলতে থাকবে এবং কখনোই বা এ অবস্থা থেকে মানুষ মুক্তি পাবে এ প্রশ্নই এখন ঘুরপাক খাচ্ছে সর্বত্র। ইতিমধ্যেই দেশের অন্যান্য এলাকার ন্যায় এ উপজেলায় সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পাশাপাশি সবর ধরনের সভা-সমাবেশ, গণ সংযোগ, জমায়েত, বৃহৎ পরিসরে ধর্মীয় ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, কমিউনিটি সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে সরকারীভাবে। সর্বক্ষেত্রে এখন সাধারণ মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় প্রধান অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে করোনা ভাইরাস আতংক। আর এ বিষয়টিকে পুঁজি করে একশ্রেনীর মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে কিছু মনগড়া মন্তব্য পোষ্ট করে মানুষের মধ্যে আতংক ছড়াতে ব্যস্ত হয়ে উঠেছে। করোনা ভাইরাসের চেয়ে মানুষের কাছে বেশী ভয়াবহ হয়ে উঠেছে আতংক ছড়াতে ব্যস্ত থাকা এসব ফেইসবুক ব্যবহারকারীরা। করোনা ভাইরাস নিয়ে মনগড়া অপব্যখ্যাকারীদের এসব রসালো মন্তব্য আমলে না নেয়াই শ্রেয় বলে মনে করছেন অভিজ্ঞমহল।
অপরদিকে, এসব ফেইক আইডি ব্যবহারকারীদের অপপ্রচারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমুল্যের লাগাম ছিড়তে বসেছে। কয়েকদিনের ব্যবধানেই চাল-ডাল, চিনি, পেঁয়াজ-রসুণসহ বেশ কিছু দ্রব্যমুল্যের দাম বাড়তে শুরু করেছে। বিষয়টি মহামারি আকার ধারন করার আগেই লাগাম টেনে ধরেছে এখানের প্রশাসন। বাজার মনিটরিং করে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে শহরের বেশ কটি দোকান মালিকের বিরুদ্ধে জরিমানা করা হলে মুল্যবৃদ্ধি অনেকটাই থেমে যায়। এরপরও শহরের চিহ্নিত কতিপয় ব্যবসায়ী দাম বাড়ানোর জন্য ওঁৎ পেতে আছে। এদিকে, করোনা ভাইরাসের ভয়ে ঘর ও বাড়ির আঙ্গিনাতেই আটকে গেছে প্রায় সিংহভাগ মানুষের জীবন। খুব বেশী প্রয়োজন ছাড়া মানুষ বাইরমূখী হচ্ছেন না। শহর ও গ্রাম্য হাট-বাজার যেখানে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত মানুষের সমাগম ছিল বর্তমানে এসব স্থানের চিত্র আমুল পাল্টে গেছে। শুক্রবার এমন চিত্রই ফুটে উঠেছে ছাতক পৌর শহরে। অফিস-আদালতেও জন সমাগম ছিল অত্যন্ত কম। সন্ধ্যা হওয়ার সাথে সাথে শহর ফাঁকা হতে থাকে। এ যেন এক অন্য জগতে প্রবেশ করতে চলছে এখানকার মানুষ।

পাঠকের মতামত...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*