Home » আন্তজাতিক » ফের হাসপাতালে ভর্তি অমিত শাহ

ফের হাসপাতালে ভর্তি অমিত শাহ

বাংলার কন্ঠস্বর // করোনা ভাইরাস থেকে সেরে উঠলেও আবারও শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়ায় দিল্লির একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং ক্ষমতাসীন বিজেপির শীর্ষ নেতা অমিত শাহকে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া

 

প্রবল শ্বাসকষ্ট হওয়ায় তড়িঘড়ি করে তাকে শনিবার রাত ১১টার দিকে দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট ফর মেডিকেল সায়েন্সেসে (এইমস) ভর্তি করা হয়। এইমস-এর সিএন টাওয়ারে তিনি চিকিৎসাধীন। সাধারণত, ভিভিআইদের চিকিৎসার জন্য পরিচিত এই সিএন টাওয়ার।

সূত্রের খবর, এইমস-এর অধিকর্তা ডা. রণদীপ গুলেরিয়ার তত্ত্বাবধানের চিকিৎসা চলছে অমিত শাহর। তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানা গেছে। তবে, হাসপাতালের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো মেডিকেল বুলেটিন প্রকাশ করেনি।

গত ২ আগস্ট অমিত শাহের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল। চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে গুরুগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। একটি টুইটবার্তায় জানিয়েছিলেন, ‘করোনার উপসর্গ দেখা দেয়ার পর আমি করোনা টেস্ট করিয়েছিলাম। রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। আমার শরীর ঠিক আছে। তা সত্ত্বেও চিকিৎসকদের পরামর্শে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছি। গত কয়েকদিনে যারা আমার সংস্পর্শে এসেছিলেন, তারা দয়া করে নিজেদের আইসোলেশনে রেখে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে নিন।’

মাঝে তার রিপোর্ট নেগেটিভ আসার গুজব ছড়ালেও শেষ পর্যন্ত ১৪ আগস্ট হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন শাহ। জানিয়েছিলেন, বাড়িতেই নিভৃতবাসে কাটাবেন তিনি। কিন্তু তিনদিন পর অর্থাৎ ১৭ আগস্ট রাতে অমিত শাহকে দিল্লি এইমসে ভর্তি করা হয়েছিল। পরদিন সকালে হাসপাতালের পক্ষ থেকে একটি বিবৃতিতে জানানো হয়েছিল, করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এলেও ক্লান্তি বোধ করছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। গায়ে ব্যথাও হচ্ছে। করোনা পরবর্তী চিকিৎসার জন্য এইমসে ভর্তি করা হয়েছে। শারীরিক অবস্থাও স্থিতিশীল রয়েছে। তার করোনা রিপোর্টও নেগেটিভ এসেছিল বলে জানানো হয়েছিল।

সেই দফায় ১৫ দিনের মাথায় (৩১ আগস্ট) হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন শাহ। পরদিন বাড়ি থেকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকেও হাজির হয়েছিলেন। কিন্তু তারপর শনিবার রাতে আবার হাসপাতালে ভর্তি হলেন আলোচিত এই বিজেপি নেতা।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 43 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*