Home » অপরাধ » ব্যবসায়ী হত্যা: দুই মাসেও অধরা প্রধান আসামি কাউন্সিলর

ব্যবসায়ী হত্যা: দুই মাসেও অধরা প্রধান আসামি কাউন্সিলর

বাংলার কন্ঠস্বর // টেনে হিঁচড়ে বের করে শত মানুষের সামনে ব্যবসায়ী আক্তার হোসেনকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনার প্রধান আসামি কাউন্সিলর আলমগীর হোসেন দুই মাসেও গ্রেপ্তার হয়নি। জামিনে ছাড়া পেয়েছেন মামলার দ্বিতীয় আসামি কাউন্সিলরের ভাই আমির হোসেন। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নিহত ব্যবসায়ীর স্বজনরা।

 

সূত্র জানায়, গত ১০ জুলাই (শুক্রবার) জুমার নামাজের পর নগরীর ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলমগীর হোসেনের নেতৃত্বে ব্যবসায়ী আক্তার হোসেনকে হত্যার অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় কাউন্সিলর আলমগীরসহ ১০ জনকে আসামি করে মামলা করেন নিহত আক্তারের স্ত্রী রেখা বেগম। হত্যাকাণ্ডের দিনেই তিনজনকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে প্রেরণ করে পুলিশ।

নিহত ব্যবসায়ী আক্তার হোসেনের ছোট ভাই স্থানীয় যুবলীগ নেতা শাহজালাল আলাল অভিযোগ করেন, দুই মাস হয়ে গেলো, মামলার প্রধান আসামিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারেনি। পক্ষান্তরে এ মামলার দ্বিতীয় আসামি কাউন্সিলরের ভাই আমির হোসেনকে তিনদিন আগে জামিন নিয়েছে।

তিনি বলেন, ফেরারি আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশের কোন তৎপরতা নেই। মূল আসামি যদি গ্রেপ্তার না হয়, তারা মামলা পরিচালনা, চিকিৎসকদের রিপোর্ট তৈরিসহ নানা কাজে বাধা দিতে পারে। তাদের দ্রুত গ্রেপ্তার করা হোক।

সদর দক্ষিণ মডেল থানার পরিদর্শক কমল কৃষ্ণ ধর জানান, এ ঘটনায় সিটি কর্পোরেশনকে আমরা চিঠি দিয়েছি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য। আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এখনও ৭ জন আসামি পালাতক আছে। তিনজন গ্রেপ্তার হয়েছে, তাদের একজন জামিনে বের হয়েছে বলে অবগত হয়েছি। তবে অফিসিয়াল কোন নথি এখনো আমরা হাতে পাইনি।

এ বিষয়ে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন মেয়র মনিরুল হক সাক্কু জানান, জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারি না। এ বিষয়ে স্থানীয় সরকার সিদ্ধান্ত নেয়। কাউন্সিলরের ছোট ভাই ইঞ্জিনিয়ার তাফাজ্জল আমাদের এখানে চাকরি করে। সে এখন পালাতক রয়েছে। যেহেতু এটি আইনের বিষয়, পুলিশ এটা দেখছে।

প্রসঙ্গত, ২৪ জুলাই কুমিল্লা মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক পদ থেকে কাউন্সিলর আলমগীর হোসেনকে বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় কমিটি।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 42 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*