Home » অপরাধ » ২৩ বছরেও বিচার হয়নি রাঙামাটির ৩৫ কাঠুরিয়া হত্যার

২৩ বছরেও বিচার হয়নি রাঙামাটির ৩৫ কাঠুরিয়া হত্যার

বাংলার কন্ঠস্বর // দীর্ঘ ২৩ বছরেও বিচার হয়নি রাঙামাটির লংগদু উপজেলার পাকুয়াখালীর ৩৫ কাঠুরিয়া হত্যাকাণ্ডের। বর্বর এ হত্যাকাণ্ডের কোন বিচার না পেয়ে হতাশায় নিমজ্জিত নিহতদের পরিবারগুলো। আজও এ হত্যার বিচার হবে কিনা তা নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা শঙ্কা। 

অভিযোগ রয়েছে, দীর্ঘ বছর ধরে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের দ্বারা সংগঠিত হত্যাকাণ্ডগুলোর বিচার না হওয়ার কারণে এখনো পাহাড়ের রক্ত ঝড়ছে। এ সব সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে পার্বত্যাঞ্চলে কখনো শান্তি প্রতিষ্ঠা হবে না বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে, পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ নেতারা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আজ ছিল পার্বত্যাঞ্চলের জন্য সেই অন্যতম গণহত্যা দিবস। যার এ অঞ্চলের মানুষের কাছে ‘‘পাকুয়াখালী ট্রাজেডি দিবস’’ নামে পরিচিত। এটি পার্বত্য চট্টগ্রামের ইতিহাসের সবচেয়ে শোকাবহ এক কালোদিন। ১৯৯৬ সালে ৯ সেপ্টম্বর তৎকালীন শান্তি বাহিনী নামে (বর্তমান পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি) বিচ্ছিন্নতাবাদী উপজাতিদের একটি সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপ রাঙামাটি লংগদুর উপজেলার ৩৫জন কাঠুরিয়াকে ব্যবসায়িক কাজে ডেকে নিয়ে যায় পাকুয়াখালীর গহীন অরণ্যে। জঙ্গলে পৌঁছানোর পর সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা তাদের অস্ত্রেরমুখে জিম্মি করে ফেলে। পরে কাঠুরিয়াদের হাত-পা-চোখ বেঁধে নির্যাতন করে হত্যা করে। সেসময় কাঠুরিয়াদের মধ্য থেকে ইউনুছ নামে একজন কাঠুরিয়া পালাতে সক্ষম হয়। সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের চোখের আড়ালে পালিয়ে এসে যৌথবাহিনীকে বিষয়টি অবগত করে। একদিন পর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলের দিকে রওনা করে সেনা সদস্যরা। কিন্তু তার আগেই শান্তিবাহিনীর সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা কাঠুরিয়াদের চোখ উপরে, হাত পা কেটে নির্মম নির্যাতন করে হত্যা করে পালিয়ে যায়।  পরে সেনাবাহিনী পাকুয়াখালী থেকে ২৮ জন মানুষের ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করে। কিন্তু তাদের মধ্যে বাকি ৭ জন কাঠুরিয়ার কোন হদিস এখনো পাওয়া যায়নি। এঘটনা সেসময় ব্যাপক আলোচনা সৃষ্টি করলেও বিচার পায়নি এসব কাঠুরিয়াদের পরিবারগুলো। 

সেদিনকে স্মরণ রেখে বুধবার ওই ৩৫ কাঠুরিয়া হত্যা দিবস পালন করে রাঙামাটির লংগদু উপজেলাবাসিন্দারা। আয়োজন করা হয় আলোচনা সভা, দোয়া মাহাফিল ও গণকবর জিয়ারত। একই সাথে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের বিচার, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পূর্নাবসনের দাবি জানান স্থানীয় বাঙালীরা।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 38 - Today Page Visits: 2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*