Home » লিড নিউজ » শহীদ মিনার ভাঙতে বাধা দেয়ায় পিস্তল দেখায় তারা!

শহীদ মিনার ভাঙতে বাধা দেয়ায় পিস্তল দেখায় তারা!

বাংলার কন্ঠস্বর // ঝালকাঠি সুগন্ধা পৌর আদর্শ বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার  ভাঙচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শারমীন মৌসুমি কেকা এবং শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান তাপুসহ ১৭ জনের নামে দ্রুত বিচার আইনে মামলা হয়েছে।

 

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রীতা মন্ডল বাদী হয়ে সোমবার ঝালকাঠির সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ নালিশী মামলা দায়ের করেন।

বিচারক এ এইচ এম ইমরানুর রহমান ঝালকাঠি থানার ওসিকে বাদীর অভিযোগ এফআইআর হিসেবে রেকর্ডের নির্দেশ দেন। মামলায় তিন জনের নাম উল্লেখ থাকলেও ১৪ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে।

মামলার বাদী প্রধান শিক্ষক রীতা মন্ডল অভিযোগ করেন, বিদ্যালয়ের খেলার মাঠের উত্তর-পূর্ব কোণে পাঁচ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছিল। গত ১৪ আগস্ট বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি শারমীন মৌসুমি কেকা, আনিসুর রহমান তাপুর নেতৃত্বে অজ্ঞাতনামা আরও ১২-১৪ জন সুগন্ধ্যা পৌর আদর্শ বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দেয়াল ঘেরা খেলার মাঠের গেটের তালা ভেঙে ফেলে। পরে অবৈধভাবে স্কুলের কম্পাউন্ডে প্রবেশ শহীদ মিনার ভেঙে গুঁড়িয়ে ফেলে।

প্রধান শিক্ষকের অভিযোগ, স্থানীয় কিছু লোকজন ও কয়েকজন অভিভাবক শহীদ মিনার ভাঙার কারণ জানতে চায়। তারা বাধাও দেয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু ১ ও ২ নং আসামি পিস্তল ও ৩ নং আসামি দেশীয় দেখিয়ে সকলকে সরে যেতে বাধ্য করে।

বাদীর আইনজীবী শফিকুল ইসলাম বলেন, শহীদ মিনার একটি গুরত্বপূর্ণ স্থাবর সম্পত্তি। আসামিরা আইনশৃঙ্খলা বিঘ্ন করে ইচ্ছাকৃতভাবে ভাষা আন্দোলন ও স্বাধীকার আন্দোলনের প্রতীক শহীদ মিনার ভাঙচুর করেছে। এটা মারাত্মক অপরাধ। তাই এটি দ্রুত বিচার আইনে বিচারযোগ্য।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 23 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*