Home » খেলাধুলা » এমন মৃত্যু মানা যায় না

এমন মৃত্যু মানা যায় না

বাংলার কন্ঠস্বর // আসছে বঙ্গবন্ধু টি-২০ গোল্ডকাপ। কে কোন দলে এই নিয়ে ক্রিকেট পাড়ায় বেশ উত্তাপ। কেমন দল গোছালো কোন দল এই নিয়ে জল্পনা কল্পনারও শেষ নেই। কিন্তু এরই মাঝে টুর্নামেণ্টে স্থান না পেয়ে আত্মাহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন সজীবুল ইসলাম সজীব। যে মৃত্যু কিছুতেই মেনে নেয়া যায় না।
করোনায় থমকে আছে ক্রিকেট পাড়া। দীর্ঘ বিরতির পর ২২ গজে গড়াতে শুরু করেছে বল। হয়ে গেলো প্রেসিডেন্ট কাপ। এরপর হতে যাচ্ছে প্রতিশ্রুত বঙ্গবন্ধু টি-২০ গোল্ডকাপ।

যদিও রুটিনে থাকা শ্রীলঙ্কা ট্যুর নানা জটিলতার জেরে বাতিল হয়েছে।
কিন্তু ঘরোয়া এই ক্রিকেট টুর্নামেণ্টের আলোকছটায় স্থান না পেয়ে আত্মহত্যা করেছেন রাজশাহীর সম্ভাবনাময় ক্রিকেটার সজীবুল ইসলাম সজীব। সজীব সুনামের সঙ্গে খেলে এসেছেন বিভিন্ন বয়স ভিত্তিক জাতীয় দলে। অনূর্ধ্ব ১৫ ও ১৭ খেলেছেন, সেইসঙ্গে জাতীয় দলের পাইপ লাইনখ্যাত অনূর্ধ্ব ১৯ দলেও নাম লিখিয়েছেন। ভারতের বিপক্ষে চাপের মুখে ৯৫ রানের কাব্যিক ব্যাটিং মুগ্ধ করেছিল ক্রিকেট বোদ্ধাদের। তার ঝুলিতে আছে দেশের বাইরে খেলার অভিজ্ঞতাও। কিন্তু তরুণ সম্ভাবনাময় এ ক্রিকেটার বঙ্গবন্ধু টি-২০ গোল্ডকাপে সুযোগ না পেয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন। যে মৃত্যু হতাশ করেছে সকলকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই মৃত্যু নিয়ে বেশ আলোচনা দেখা দিয়েছে। সেই সঙ্গে খোলায়াড়দের মানসিকভাবে তৈরি করার দিক থেকে কতটুকু ভূমিকা পালন করছেন কর্তা-ব্যক্তিরা? এই প্রশ্নও উঠেছে।
বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও জাতীয় দলের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার মুশফিকুর রহীম তার ভ্যারিফাইড ফেসবুক পেইজে লেখেন, ক্রিকেটের বাইরেও একটা জীবন আছে। খুবই মর্মাহত হয়েছি সম্ভাবনাময় ক্রিকেটার সজীবের মৃত্যুর খবরে। আত্মাহত্যা কোন সমাধান নয়। আত্মহত্যার আগে পরিবারের কথা ভাবা উচিত।
এই মৃত্যুর খবরে ক্রিকেট পাড়ায় দেখা দিয়েছে শোক। সজীব রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার ঝালুকা গ্রামের মুরসেদ আলীর ছেলে। শনিবার গভীর রাতে নিজ ঘরে গলায় রশি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। পরে  রোববার সকালে স্বজনরা দরজা ভেঙে সজীবের লাশ উদ্ধার করে। পরিবারের দাবি, হতাশা থেকেই আত্মহত্যা করেছে সজীব।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 54 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*