Home » আন্তজাতিক » ভূমিকম্পের ৩৩ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার, তুরস্কে মৃত বেড়ে ৭৬

ভূমিকম্পের ৩৩ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার, তুরস্কে মৃত বেড়ে ৭৬

বাংলার কন্ঠস্বর // তুরস্কের এজিয়ান অঞ্চলের ইজমির শহরে ভয়াবহ ভূমিকম্পের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭৬ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে ৯৬২ জন। ভূমিকম্পের ধ্বংসস্তূপ থেকে ৩৩ ঘণ্টা পর ৭০ বছর বয়সী এক বৃদ্ধকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।

গত শুক্রবার দেশটির এজিয়ান উপকূল এবং গ্রিক উপকূলে ৬ দশমিক ৯ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানে। ভূমিকম্পে ইজমির প্রদেশের অন্তত ২০টি ভবন ধ্বসে পড়ে।

ওই ধ্বংসস্তুপগুলোর একটি থেকে গতকাল রোববার ভোররাতে আহমেদ সিতিম নামে ৭০ বছর বয়সী ওই বৃদ্ধকে উদ্ধার করা হয়। সিতিমকে যে ভবন থেকে উদ্ধার করা হয়, সেই ৮তলা ভবনের ধ্বংসস্তূপ থেকে ভূমিকম্পের ১৭ ঘণ্টা পর ১৬ বছর বয়সী ইনসি ওকান ও তার কুকুর ফিস্তিককেও উদ্ধার করা হয়েছিল। তুরস্কের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহরেনিতন কোচা এবং ন্যাশনাল মেডিকেল রেসকিউ টিমের (ইউএমকেই) সদস্য এদানুর দোগান হাসপাতালে কিশোরী ওকানকে দেখতে যান।

হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে ১৬ বছরের ওই কিশোরী বলেন, ‘আমি খুব খুশি। ভাগ্য ভালো আমার বাবা বাসায় ছিলেন না। বাবা সেখানে ভালোভাবে থাকতে পারতেন না। তার মাথায় আঘাত লাগত। আমি ছোট হওয়ার কারণেই ছোট জায়গাতেও আটকে ছিলাম। এ কারণে আমাকে উদ্ধার করাও সম্ভব হয়।’

ভূতাত্ত্বিক কারণে তুরস্কের উপকূল ভূমিকম্পপ্রবণ। ১৯৯৯ সালে দেশটির উত্তরপশ্চিমাঞ্চলে দুটি শক্তিশালী ভূমিকম্পে ১৮ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। ইস্তাম্বুলভিত্তিক কান্দিলি ইনস্টিটিউট জানিয়েছে, শুক্রবারের ভূমিকম্পটির মাত্রা ৬ দশমিক ৯। কেন্দ্র ছিল সামোসের উত্তর পূর্বে এজিয়ান সাগরে।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ভূমিকম্পে যাদের বাড়িঘর ধ্বংস হয়ে গেছে তাদের জন্য অতিদ্রুত নতুন বাড়ি নির্মাণ করা হবে। ঘরবাড়ি হারানো মানুষদের জন্য অস্থায়ী বসতি এবং খাবার রান্নার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 42 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*