ঢাকাTuesday , 2 February 2016
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. এক্সক্লুসিভ
  6. করোনা আপডেট
  7. খুলনা
  8. খেলাধুলা
  9. গণমাধ্যম
  10. চট্টগ্রাম
  11. জাতীয়
  12. ঢাকা
  13. তথ্য-প্রযুক্তি
  14. প্রচ্ছদ
  15. প্রবাসে বাংলাদেশ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জেলার ৯ ইউনিয়নে নির্বাচন–অনিশ্চিত বরিশালে শংকায় লক্ষাধীক ভোটার

Link Copied!

বরিশাল ব্যুরো

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ঢামাঢোল ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। গোটা বরিশালের গ্রামগঞ্জে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। তবে জেলার ৯ ইউনিয়নের লক্ষাধীক ভোটের মুখে হাসি নেই। সীমানা নির্ধারন, মামলাসহ নানা কারনে এসব ইউপিতে আসন্ন নির্বাচন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। ফলে চরম ক্ষোভ ও শংকা প্রকাশ করেছেন ওইসব ইউনিয়নের ভোটাররা।

মেঘনা ঘেরা মেহেন্দীগঞ্জের ৩টি ইউনিয়ন ভেঙ্গে এখন ৫টি ইউনিয়ন হয়েছে। এগুলো হচ্ছে লতা, আলিমাবাদ, চর এককুরিয়া, শ্রীপুর ও জয়নগর। তবে ইউনিয়ন গঠনের গেজেট হলেও ওয়ার্ড বিভক্তি এখনও হয়নি। ফলে ওই ৫টি ইউনিয়নের প্রায় ৪০ হাজার ভোটার আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ভোট দিতে পারবে কিনা তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। চর এককরিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আ. মকিম তালুকদার বলেন, তার  এখান থেকে ২টি ওয়ার্ড গেছে অন্য ইউনিয়নে নিয়ে গেছে। কিন্তু সীমানা নির্ধারন হয়নি। এখন কি হয় বলা যাচ্ছে না। তবে জনগন তো চায় ভোট এ অংশ নিতে। মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি গিয়াস উদ্দিন বলেন, ভোট দিতে সকলেই চান। তার এলাকার হাজার হাজার ভোটার নির্বাচনে অপেক্ষায়। এমন উৎসবে ওই ৫টি ইউনিয়নের জনগন যাতে অংশ নিতে পারেন এজন্য দ্রুত নির্বাচন কমিশনকে ব্যবস্থা নিতে হবে।

মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শওকত আলী বলেন, তার ইউপির ৩টি ইউনিয়ন ভেঙ্গে এখন ৫টি ইউনিয়ন হয়েছে। এগুলো হচ্ছে লতা, আলিমাবাদ ও চরএককুরিয়া,  শ্রীপুর ও জয়নগর।  ইউনিয়ন গঠনের গেজেট হলেও ওয়ার্ড বিভক্তি না হওয়ায় ভোটার তালিকা বিন্যাস সম্ভব নয়। এ অবস্থায় ওই ৫টি ইউপির প্রায় ৪০ হাজার ভোটার আসন্ন নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন কিনা তাতে সংশয় রয়েছে। তিনি বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকেও চিঠি দিয়ে জানাবেন।

হিজলা উপজেলার গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নকে বিভক্ত করে নতুন একটি ইউনিয়ন করার প্রস্তাব বর্তমানে মন্ত্রনালয়ে রয়েছে। এ অবস্থায় সেখানে নির্বাচন হবে কিনা তা নিয়ে গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নের ২৪ হাজার ভোটারদের মধ্যে হতাশা ছড়িয়ে পড়েছে। গুয়াবাড়িয়ে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন ঢালি বলেছেন, স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যান ও এমপি এক বছর আগে মন্ত্রনালয়ে এ প্রস্তাব পাঠান। এ নিয়ে সীমানা জটিলতা রয়েছে। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আ. রশিদ বলেন, গুয়াবাড়িয়া ইউপির মেয়াদ শেষ হয়েছে। সেখানে প্রায় ২৪ হাজার ভোটার রয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী নির্বাচন হওয়ার কথা। কিন্তু এখন পর্যন্ত কিছুই বলা যাচ্ছে না।

একই অবস্থা জেলার উজিরপুর, মুলাদী ও বাকেরগঞ্জের ৩টি ইউনিয়নে। নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা গেছে, মুলাদী উপজেলার বাটামারা ইউনিয়নে সীমানা সংক্রান্ত মামলায় ২০১১ সালেও নির্বাচন হয়নি। সেখানকার বাসিন্দা মাস্টার আবদুর রব বলেন, ১৩ বছর নির্বাচন হয়নি এ ইউনিয়নে। দীর্ঘদিন নির্বাচন না হওয়া এখানকার ১৬ হাজার জনগন হতাশ। মামলা জটিলতার কারনেই এমনটা হচ্ছে।

এছাড়া  সীমানা সংক্রান্ত জটিলতায় উজিরপুরের শিকারপুর-উজিরপুর ইউনিয়ন এবং বাকেরগঞ্জের দুর্গাপাশা ইউনিয়নে দীর্ঘ বছর ধরে নির্বাচন হচ্ছে না। এ অবছরও হবে কিনা তাতে সন্দিহান নির্বাচন অফিস। এ দুই ইউনিয়নে প্রায় ২০ থেকে ২৫ হাজার ভোটার রয়েছে বলে নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা গেছে।

এব্যাপারে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আঃ হালিম বলেন, সীমানা নির্ধারন জটিলতায় ওইসব ইউনিয়নে নির্বাচন হবে কিনা তা সুস্পস্ট ভাবে বলা যাচ্ছে না। ওইসব জায়গায় ভোটার পূনর্বিন্যাস করতে হতে পারে। সেক্ষেত্রে নির্বাচনও কিছু দিন পরে হতে পারে। তাছাড়া কোন কোন ইউনিয়নে মামলা জটিলতাও আছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।