1. banglarkonthosor667@gmail.com : banglarkonthosor : News Users
  2. mehendiganjsangbad@gmail.com : Alamin Alamin : Alamin Alamin
  3. sarderamin830@gmail.com : Mohammed Amin : Mohammed Amin
  4. mamunahamed65@gmail.com : Mambun Ahmed : Mambun Ahmed
  5. banglarkonthosor24@gmail.com : বাংলার কন্ঠস্বর : বাংলার কন্ঠস্বর
  6. mdparvaj89@gmail.com : MD Parvaj : MD Parvaj
  7. rajibtaj050@gmail.com : Rajib Taj : Rajib Taj
  8. sumunto2019@gmail.com : Sumunto Halder : Sumunto Halder
দেশের যেসব জায়গায় পাওয়া যাবে ফাইভ-জি - বাংলার কন্ঠস্বর ।। BanglarKonthosor
বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:২৯ অপরাহ্ন
নোটিশ :
দেশর সকল জেলা-উপজেলা,থান-বিশ্ববিদ্যালয় ও সরকারি কলেজ সমূহে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...মেধাবীদের কাছ থেকে আবেদন আহ্বায়ন করা যাচ্ছে । যোগাযোগ: ০১৭৭২০২৯০৪৮।

দেশের যেসব জায়গায় পাওয়া যাবে ফাইভ-জি

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২১
  • ২৫ বার
অনলাইন ডেস্ক // দেশে আগামী ১২ ডিসেম্বর পরীক্ষামূলকভাবে চালু হচ্ছে ফাইভজি। রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটক রাজধানীর কয়েকটি এলাকায় বিশেষ করে গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলোতে এই নেটওয়ার্ক চালু করবে। আগামী বছর দেশের ২০০টি গুরুত্বপূর্ণ সাইটে (টাওয়ারে) এই নেটওয়ার্ক চালু করবে অপারেটরটি। যদিও ২০২২ সালে অন্যান্য মোবাইল ফোন অপারেটরও ফাইভজি চালু করবে।

১২ ডিসেম্বর ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবসে’ ফাইভজি নেটওয়ার্ক চালু হলেও সবাই এই সেবা ব্যবহার করতে পারবেন না। কয়েকটি বিশেষ স্থাপনায় এই নেটওয়ার্ক চালু করা হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আমরা প্রাথমিকভাবে কয়েকটি জাতীয় গুরুত্পূর্ণ স্থাপনায় ফাইভজি চালুর পরিকল্পনা করেছি। এরমধ্যে রয়েছে— বঙ্গভবন, গণভবন, সংসদ ভবন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, সচিবালয় ও ধানমন্ডি ৩২ নম্বর। এছাড়া আমাদের আরও দুটি স্থাপনায় ফাইভজি চালুর পরিকল্পনা রয়েছে। যদিও এখনও সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়নি, এগুলো হলো— টুঙ্গিপাড়া ও রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকা।’

মন্ত্রী বলেন, ‘দেশে ১৪টি মোবাইল তৈরির কারখানা রয়েছে। এর উদ্যোক্তারা আমাদের জানিয়েছেন, সবারই ফাইভজি ফোন তৈরির সক্ষমতা রয়েছে। সময় হলেই তারা ফাইভজি ফোন তৈরি করবেন।’ ফাইভজি ফোন তৈরির বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘স্যামসাং আমাকে জানিয়েছে, তারা এরইমধ্যে ফাইভজি ফোন তৈরি করেছে।’ অন্যরাও এগিয়ে আসবে বলে তিনি আশাবাদী।

ফাইভজি ফোনের বিষয়ে জানতে চাইলে দেশের মোবাইল ফোন উৎপাদকদের সংগঠন বিএমপিআইএ-এর সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া শহীদ বলেন, ‘ফাইভজি চালু হলে মোবাইল ফোন নির্মাতারা ঠিকই ফাইভজি ফোনসেটের উৎপাদনে যাবেন।’ আগামী বছর কয়েকটি কারখানায় ফাইভজি ফোনের উৎপাদন শুরু হবে বলে তিনি জানান। তার নিজের প্রতিষ্ঠান সিম্ফনির কারখানায়ও ফাইভজি ফোন তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে। তিনি মনে করেন, এরইমধ্যে দেশে অনেক ফাইভজি ফোন রয়েছে। আইফোনসহ অন্যান্য দামি ফোনগুলো ফাইভজি সাপোর্টেড। এ সংখ্যা একেবারে কম নয় বলে তিনি জানান।

দামের পার্থক্য একটা বড় ব্যাপার হবে বলে বিএমপিআইএ-এর সাধারণ সম্পাদক মনে করেন। ফোরজি ফোনের তুলনায় ফাইভজি ফোন বেশ দামি হবে। সেটা সাধারণ গ্রাহকের কতটা সাধ্যের মধ্যে থাকবে, তার ওপর নির্ভর করবে ফাইভজি ফোনের স্বার্থকতা বলে মনে করেন জাকারিয়া শহীদ।

এ পোষ্টটি ভাল লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ