ঢাকাWednesday , 11 May 2022
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. এক্সক্লুসিভ
  6. করোনা আপডেট
  7. খুলনা
  8. খেলাধুলা
  9. গণমাধ্যম
  10. চট্টগ্রাম
  11. জাতীয়
  12. ঢাকা
  13. তথ্য-প্রযুক্তি
  14. প্রচ্ছদ
  15. প্রবাসে বাংলাদেশ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নিজেকে নির্দোষ দাবি করলেন ডা. সাবরিনা

Mohammed Amin
May 11, 2022 5:28 pm
Link Copied!

আদালত প্রতিবেদক // করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষায় প্রতারণা ও জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে অর্থ আত্মসাতের মামলায় নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা চৌধুরী। আত্মসপক্ষ শুনানিতে তিনিসহ আটজন আসামি নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন।

আজ বুধবার ঢাকার অতিরিক্ত মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে আসামিরা এ নির্দোষ দাবি করেন। আদালত আগামী ২৫ মে মামলায় যুক্তিতর্কের শুনানির দিন ধার্য করেন।

নির্দোষ দাবি করা অপর আসামিরা হলেন ডা. সাবরিনার স্বামী আরিফ চৌধুরী, আবু সাঈদ চৌধুরী, হুমায়ূন কবির হিমু, তানজিলা আক্তার পাটোয়ারী, বিপুল দাস, শফিকুল ইসলাম রোমিও ও জেবুন্নেসা রুমা।

আদালতের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর আজাদ রহমান বলেন, মামলাটিতে মোট ৪০ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করার কথা ছিল। তাদের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ ২৬ জন সাক্ষীকে আদালতে তোলা হয়। গত ২০ এপ্রিল সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়। এরপর আদালত আত্মপক্ষ শুনানির দিন ঠিক করেন।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, ভুয়া করোনা সার্টিফিকেট ডিজাইন করার অপরাধে ২০২০ সালের ২২ জুন জেকেজির সাবেক গ্রাফিক্স ডিজাইনার হুমায়ূন কবীর হিরু ও তার স্ত্রী তানজীন পাটোয়ারীকে আটক করে পুলিশ। পরে হিরুর দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ জেকেজির সিইও আরিফুলসহ চারজনকে আটক করে।

সিইও জানান, প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা চৌধুরীর নির্দেশেই সব কিছু হয়েছে। এরপর ওই বছর ১২ জুলাই ডা. সাবরিনা চৌধুরী গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে ১৩ জুলাই ৩ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয় সাবরিনাকে। এ মামলায় ২৩ জুন আরিফ চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। রিমান্ড শেষে সকল আসামিই বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।