Home » অন্যান্য » একসঙ্গে শিক্ষা ও চিকিৎসা

একসঙ্গে শিক্ষা ও চিকিৎসা

বাংলার কন্ঠস্বর প্রতিবেদক : রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজের একসঙ্গে পথচলা শুরু হয়েছে।

কুর্মিটোলা হাসপাতাল মিলনায়তনে রবিবার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজের মাঝে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। এর ফলে এখন থেকে এ দু’টি প্রতিষ্ঠান একীভূত হয়ে চিকিৎসা ও শিক্ষা নিশ্চিত করবে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মো. নুরুল হক এবং সামরিক চিকিৎসা অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল রবিউল হোসেইন এই স্মারকে স্বাক্ষর করেন।

সমঝোতা স্মারক অনুযায়ী আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক থেকে অধ্যাপক পর্যায়ের চিকিৎসকরা কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের রোগীদের চিকিৎসা ও চিকিৎসকদের প্রশিক্ষণের কাজে সম্পৃক্ত হবেন। আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজ থেকে পাসকৃত ইন্টানি চিকিৎসকরা কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে প্রশিক্ষণ নিবেন। এ ছাড়া তৃতীয় বর্ষ থেকে কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা হাসপাতাল থেকে ক্লিনিক্যাল প্রশিক্ষণ পাবেন বলে জানানো হয়।

এ সময় আরও জানানো হয়, কুর্মিটোলা হাসপাতালে চিকিৎকদের স্নাতকোত্তর প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। অধ্যাপকরা যোগদানের পর হাসপাতালে নেফ্রলজি, বার্ন এ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি, মনোরোগ, রক্ত পরিসঞ্চালন বিভাগসহ আরও নতুন বিভাগ চালু করা হবে।

এ ছাড়া কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের সহায়তায় হাসপাতালে স্থাপিত আধুনিক মরচুয়ারী ও ময়নাতদন্ত শুরু হবে।

এ সময় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে হাসপাতালটির পূর্ণাঙ্গভাবে যাত্রা শুরুর ঘোষণা দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘সাধারণ মানুষের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করার পাশাপাশি মেডিকেল শিক্ষার প্রসারের কথা চিন্তা করে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজকে একীভূত করা হয়েছে। এ দু’টি প্রতিষ্ঠানের একীভূত হয়ে যাত্রা শুরু একটি ঐতিহাসিক ঘটনা। দু’টি প্রতিষ্ঠানের একত্রে পথচলার মধ্য দিয়ে দরিদ্র রোগীদের আরও বেশি স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।’

সাধারণ মানুষের কাছে এ হাসপাতালটির পরিচিতি কম উল্লেখ তিনি বলেন, ‘কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালকে জনগণের হাসপাতালে পরিণত করতে হবে। এ কারণে গ্রাম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ ঢাকা মেডিকেল, মিটফোর্ড ও সোহরাওয়ার্দীসহ অন্যান্য মেডিকেল কলেজ ও বিশেষায়িত হাসপাতালে ভিড় করেন। কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে সব রোগের চিকিৎসা পাওয়া যায়, তা জানলে রোগীরা এ হাসপাতালমুখী হবেন।’

মন্ত্রী বলেন, ‘ধনাঢ্য মানুষ রোগে আক্রান্ত হলে পাঁচতারা হোটেলের মতো বড় বড় বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। কিন্তু দরিদ্র মানুষের সেই সামর্থ্য নেই। তাদের আশ্রয়স্থল সরকারি হাসপাতাল। ১৬ কোটি মানুষের দেশে সরকারি হাসপাতালে শয্যা কম বলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নতুন নতুন হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার নির্দেশ দিয়েছেন। কুর্মিটোলা হাসপাতালে সেগুলোর একটি। দরিদ্র মানুষরা এখানে সেবা পাবেন।’

কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাইদুর রহমানের সভাপতিত্বে সমঝোতা স্মারক অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক ও সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক।

 

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 142 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*