Home » অন্যান্য » গুলশানে কার রেসিং : পুলিশের নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে হাইকোর্টের রুল

গুলশানে কার রেসিং : পুলিশের নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে হাইকোর্টের রুল

বাংলার কন্ঠস্বর প্রতিবেদক : রাজধানীর গুলশানে ৭৪ নম্বর রোডে বেপরোয়া গাড়ি চালানোর ঘটনায় জড়িতদের বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণে পুলিশের নিষ্ক্রিয়তা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না— তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

জনস্বার্থে করা এক রিট আবেদনের শুনানি শেষে মঙ্গলবার হাইকোর্টের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের অবকাশকালীন বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার অনীক আর হক। সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার জ্যোর্তিময় বড়ুয়া।

গুলশান থানার ওসির বিরুদ্ধে কেন বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না— তা জানতে চাওয়া হয়েছে আদালতের জারি করা রুলে। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক), অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (তদন্ত) ও গুলশান থানার ওসিসহ সংশ্লিষ্টদের উক্ত রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

অনীক আর হক সাংবাদিকদের বলেন, ১২ অক্টোবর গুলশানে কার রেসিংয়ের সময় দুর্ঘটনা ঘটে। পত্র-পত্রিকায় এ নিয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। কিন্তু ঘটনার আট দিন পরেও পুলিশ মামলা করেনি। মটরযান আইন অনুসারে ২১ দিনের মধ্যে মামলা না করলে আর কোনো আইনি ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না। তাই জনস্বার্থে সুপ্রীম কোর্টের ছয়জন আইনজীবী রিট করেন।

রিটের বাদীরা হচ্ছেন— সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী ওমর ফারুক, কে এইচ বাহার রুমী, মাহফুজ বিন ইউসুফ, শামীম আরা, নাজমুল খন্দকার নাজমুল আহসান ও এস এম আসলাম।

এ রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট দুর্ঘটনার ঘটনায় গাড়ির চালক ও মালিকের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা না নেওয়ার পুলিশের নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে রুল জারির নির্দেশ দিয়েছেন। অনীক আর হক বলেন, পুলিশ যথাযথ আইনি ব্যবস্থা না নিলে বিষয়টি আবারও আদালতের নজরে আনা হবে। রিট আবেদনে মিডিয়ায় প্রকাশিত প্রতিবেদন সংযুক্ত করা হয়। ওইসব প্রতিবেদনে বলা হয়, ১২ অক্টোবর বিকেল পৌনে চারটার দিকে ঢাকার গুলশানের ৭৪ নাম্বার সড়কে দুই বন্ধুর কার রেসিংয়ের সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে রিকশায় মায়ের কোলে থাকা আনুমানিক তিন-চার বছরের এক শিশু নিহত হয়।

অনীক আর হক বলেন, পত্রিকার প্রতিবেদনে দেখেছি গাড়িচালকের আসনে ছিলেন আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি এইচ বি এম ইকবালের ভাতিজা ফারিজ রহমান (১৬)। তবে পুলিশ গাড়িটিকে আটক করলেও মালিককে আটক করেনি।

প্রসঙ্গত, আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য এইচ বি এম ইকবালের ভাতিজার বেপরোয়া গাড়ি চালানোয় ১২ অক্টোবর গুলশানে এক শিশু নিহত ও চারজন আহত হয়। এই ঘটনার একদিন পর তা প্রকাশ পায়। ওই ঘটনায় কোনো মামলাও হয়নি, পুলিশ ওই কিশোরকে নিজেদের মোটরসাইকেলে করে নিরাপদে ঘটনাস্থল থেকে নিয়ে যায়।

 

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 98 - Today Page Visits: 2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*