Home » অপরাধ » রাজন হত্যা : আরও ৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ

রাজন হত্যা : আরও ৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ

বাংলার কন্ঠস্বর প্রতিবেদক :সিলেটে শিশু শেখ সামিউল আলম রাজন (১৩) হত্যা মামলায় পঞ্চম দিনের মতো আরও তিনজনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছে আদালত। তাদেরকে নিয়ে এ পর্যন্ত ১৭ জন আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন।

সিলেট মহানগর দায়রা জজ মো. আকবর হোসেন মৃধার আদালতে রবিবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত অনোয়ারুল হক, বেলাল আহমদ ও আবদুল হান্নান নামে তিনজনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

মহানগর দায়রা জজ আদালতের সহকারী সরকারি কুশলী (এপিপি) এ্যাডভোকেট জসিম উদ্দিন  এ সব জানিয়েছেন।

এর আগে ৮ অক্টোবর লুৎফুর রহমান, কাচা মিয়া-১, বাবুল মিয়া ও কাচা মিয়া-২ নামে চার জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করে আদালত। এর আগের দিন একই আদালতে ইশতিয়াক আহমদ, আবদুজ জহির, পংকি মিয়া ও নিজাম উদ্দিনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

৪ আক্টোবর একই আদালতে রাজনের মা লুবনা বেগমসহ চারজন ও ১ অক্টোবর প্রথম দিন সিলেট মহানগরের জালালাবাদ থানার সাময়িক বরখাস্ত হওয়া উপ-পরিদর্শক (এসআই) আমিনুল ইসলাম ও রাজনের বাবা শেখ আজিজুর রহমানের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। এ মামলায় সাক্ষী রয়েছেন ৩৮ জন। তাদের মধ্যে এ পর্যন্ত ১৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হলো।

২২ সেপ্টেম্বর সিলেট মহানগর দায়রা জজ মো. আকবর হোসেন মৃধার আদালতে চাঞ্চল্যকর এ মামলায় সৌদি আরবে আটক কামরুলসহ ১৩ আসামির বিরুদ্ধে ৩০২, ২০১, ৩৪ ধারায় চার্জ গঠন হয়। মামলায় ১২, ১৩, ১৪ ও ১৫ অক্টোবরও সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য রয়েছে।

প্রসঙ্গত, ৮ জুলাই কুমারগাঁওয়ে চোর অপবাদ দিয়ে শিশু শেখ সামিউল আলম রাজনকে (১৩) নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। পৈচাশিক নির্যাতনের ভিডিওচিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয় নির্যাতনকারীরা। প্রায় ২৮ মিনিটের ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। নিহত রাজন সদর উপজেলার কান্দিরগাঁও ইউনিয়নের বাদেআলী গ্রামের আজিজুর রহমানের ছেলে।

এ ঘটনায় ১৬ আগস্ট ১৩ আসামিকে অভিযুক্ত করে আদালতে হত্যা মামলার চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিলেট মহানগর ডিবি পুলিশের পরিদর্শক সুরঞ্জিত তালুকদার।

মামলায় অভিযুক্তরা হলেন— সিলেট সদর উপজেলার কুমারগাঁও শেখপাড়ার মৃত আবদুল মালেকের ছেলে সৌদি আরবে আটক কামরুল ইসলাম, তার সহোদর মুহিত আলম ওরফে মুহিত আলম, আলী হায়দার ওরফে আলী ও শামীম আলম, দিরাইয়ের বাসিন্দা পাভেল ইসলাম, চৌকিদার ময়না মিয়া ওরফে বড় ময়না, জালালাবাদ থানার টুকেরবাজার ইউনিয়নের পূর্ব জাঙ্গাইল গ্রামের মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিনের ছেলে ভিডিওচিত্র ধারণকারী নূর আহমদ ওরফে নূর মিয়া, দুলাল আহমদ, আয়াজ আলী, তাজ উদ্দিন বাদল, ফিরোজ মিয়া, আছমত আলী ওরফে আছমত উল্লাহ ও রুহুল আমিন ওরফে রুহেল।

তাদের মধ্যে সৌদি আরবে আটক কামরুল ইসলাম, শামীম আলম ও পাভেল ইসলামকে চার্জশিটে পলাতক দেখানো হয়েছে। এর আগে মুহিত আলমসহ আটজন এ ঘটনায় আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন।

২৪ আগস্ট শিশু রাজন হত্যার এ মামলার চার্জশিট গ্রহণ করেন আদালত। ২৫ আগস্ট জালালাবাদ থানা পুলিশ আদালতের নির্দেশে তিন পলাতক আসামির মালামাল ক্রোক করে। আলোচিত এ মামলায় গাফিলতির অভিযোগে জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আলমগীর হোসেন, মামলার বাদী উপ-পরিদর্শক (এসআই) আমিনুল ইসলাম ও উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাকির হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

 

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 166 - Today Page Visits: 2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*