Home » অন্যান্য » হোসেনী দালানের সামনে বোমা বিস্ফোরণ, নিহত ১

হোসেনী দালানের সামনে বোমা বিস্ফোরণ, নিহত ১

বাংলার কন্ঠস্বর প্রতিবেদকরাজধানীর পুরান ঢাকার হোসেনী দালানের সামনে পরপর তিনটি বোমা বিস্ফোরণে সানজু (১৮) নামে এব যুবক নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক ব্যক্তি।

আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল ও মিটফোর্ড হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। শুক্রবার রাত দেড়টার দিকে এ বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন গুরুতর আহতরা হলেন- আবদুর রহিম (৩০), নাঈম হোসেন (৩৫), লাবনী আকতার (১৪), আয়শা আকতার (১২), সালাউদ্দিন (৪৫), তুহিন (১২), সুদীপ (২১), মাহবুবুর রহমান (২৬), রাকিব হোসেন (২৬) ও আয়াত উদ্দিন (২৬)।

এদিকে, মিটফোর্ড হাসপাতালে আহত ৩১ জনকে নেওয়া হয় বলে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মাসুদুর রহমান জানান। তাদের অনেকেই মিটফোর্ড হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে ফিরে গেছেন বলে চকবাজার থানার ওসি জানিয়েছেন।

ইমরাম হোসেন নামে এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, তাজিয়া মিছিল উপলক্ষে হোসেনী দালানের সামনে রাতে সবাই জড়ো হন। দেড়টার দিকে হঠাৎ পরপর তিনটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটে। এ সময় অর্ধশতাধিক লোক আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ক্যাম্প ইনচার্জ মোজাম্মেল হক জানান, আহতদের মধ্যে সানজু নামে এক যুবক রাত ৩টার দিকে মারা যান। এ ছাড়া ১০ জনের অবস্থা গুরুতর। তাদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে স্প্লিন্টার বিদ্ধ হয়েছে। সবার চিকিৎসা চলছে।

হোসেনী দালান ছাড়াও রাজধানীর মোহাম্মদপুর, মিরপুর, মগবাজার ও পল্টন থেকেও তাজিয়া মিছিল বের করেন শিয়া মতাবলম্বীরা।

ওই হামলার পর মোহাম্মদপুরে শিয়াদের নিরাপত্তায় বাড়তি পুলিশ-র‌্যাব মোতায়েন করা হয়েছে বলে মোহাম্মদপুর শিয়া মসজিদ কমিটির সভাপতি রাশেদ হায়দার জানিয়েছেন।

ঢাকায় আশুরার দিনে তাজিয়া মিছিল শুরুর সঠিক ইতিহাস না পাওয়া গেলেও মনে করা হয় ১৬৪২ সালে সুলতান সুজার শাসনামলে মীর মুরাদ হুসেনী দালান প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এ শোক উৎসবের সূচনা করেন।

তাজিয়া কারবালার যুদ্ধে ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে নিহত হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর দৌহিত্র ইমাম হোসেন (রা.)-এর সমাধির প্রতিকৃতি।

আশুরার দিন (শনিবার) সকাল ১০টায় হোসেনী দালানের সামনে থেকে প্রধান শোক মিছিল বের হবে। মিছিলটি বকশীবাজার, হরনাথ ঘোষ রোড, আজিমপুর, নিউমার্কেট ও ধানমণ্ডি ২ নম্বর সড়ক পেরিয়ে ধানমণ্ডি লেকে এসে শেষ হবে। মিছিলে থাকবে ইমাম হোসেনের প্রতীকী কবর, নানা রঙের আলাম; শোকাকুল মানুষের মুখে থাকবে ‘হায় হোসেন, হায় হোসেন’ রব, থাকবে নওহা (শোকগীতি)।

এ দিন বিকেল ৪টায় পুরান ঢাকার ফরাশগঞ্জের বিবিকা রওজা (১৬০০ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত সবচেয়ে পুরনো ইমামবাড়া) থেকে বের হবে বোলতা গাওয়ারা (ছোটাছুটি বা দৌড়ানো) মিছিল।

আশুরা উপলক্ষে পুরানা পল্টন, মগবাজার, মোহাম্মদপুর ও মিরপুরে শিয়া সম্প্রদায়ের মানুষ পতাকা মিছিল, বয়ানসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে।

 

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 61 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*