Home » বরিশাল » ঝালকাঠিতে অসহায় পরিবারের জমি দখল:আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী নেতার ইন্দন

ঝালকাঠিতে অসহায় পরিবারের জমি দখল:আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী নেতার ইন্দন

রমজানুল মোরশেদ,ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠিতে এক অসহায় পরিবারের ৭০ শতাংশ জমি অবৈধ ভাবে দখলের অভিযোগ পাওয়াগেছে। গত রোববার রাত থেকে গতকাল সোমবার সকাল পর্যন্ত সদর উপজেলার কেওড়া ইউনিয়নের নৈকাঠি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, জব্বার হাওলাদা গংদের এই জমি পাশ্ববর্তী ভুমি দস্যু তসলিম মৃধা অবৈধ ভাবে দখল করে । তসলিম মৃধা শতাধিত লোক নিয়ে তারকাটা দিয়ে বেরা দেয়, ওই জমির উপরের গাছ কেটে নিয়ে যায়। একমনি কবরস্থান ও টয়লেট ভেঙ্গে ফেলে। বসত ঘরে ঢুকে মালামাল ভাঙ্গচুর করে দেড় ভরি ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন ও পাঁচ আনা ওজনের কানে অলঙ্কার ছিনিয়ে নিয়ে যায়। জব্বার হাওলাদার ও তাদের ভাইদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে। গ্রেফতার আতঙ্কে বর্তমানে তারা পালিয়ে বেরাচ্ছেন। এমনকি ওই পরিবারে নারীদের নামেও মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার করানো হয়। ওই বাড়িটি মানুষ শূন্য হওয়ার সুজোগে জমি দখলে নেয় তসলিম মৃধা। কলেজ পড়–য়া দুই মেয়েসহ ওই বাড়ি নারীদের বিভিন্ন রকমের হয়রানির চেষ্ঠা করছে তসলিম মৃধার লোকজন। আর এর পিছনে  ঝালকাঠি সদর উপজেলা আওয়ামীলের সভাপতি রশিদ হাওলাদারের ইন্দন রয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। তবে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারটি আওয়ামীলীগ নেতার সম্পৃক্ততার ব্যাপারে মুখ খুলছেননা। গতকাল সোমবার ওই স্থানে পুলিশ মোতায়েন থাকায় তসলিম মৃধা তার লোকজন নিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা জানিয়েছে, তসলিম মৃধার মা মুক্তা বেগম ও দাদি সবুরা বিবির কাছ থেকে ১৯৫১ সালের ০৪ ডিসেম্বর ৭০ শতাংশ জমি ক্রয় করেন চেরাগ আলী ডাকুয়া, ফজলুল করিম হাওলাদার ও হাকিম হাওলাদার। ৬৪ বছর ধরে এই ৭০ শতাংশ জমি ভোগ দখল করে আসছিল ফজলুল করিম হাওলাদারের তিন ছেলে জব্বার হাওলাদার, ওয়াহেদ হাওলাদার ও শহীদ হাওলাদার। ওই জমি দখলে নেয়ার জন্য বিভিন্ন রকমের মিথ্য মামলা দিচ্ছেন জব্বার হাওলাদারের পরিবারের বিরুদ্ধে। বর্তমানে ওই পরিবারটি ভুমি দস্যুদের আতঙ্কে নিরাপত্তাহীনতায় জিম্মি অবস্থায় রয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্য লিপি বেগম বলেন, ‘ আমাদের জায়গা অবৈধ ভাবে দখল করে নিয়েছে। আমাদের অনেক গাছ কেটে নিয়েগেছে। বিভিন্ন রকমের হুমকী দিচ্ছে প্রতিনিয়ত। এক মেয়ে কলেজ থেকে ভয়ে বাড়িতে আসতে পারছে। আমরা প্রশাসনের কাছে নিরাপত্তা চাই। ঝালকাঠি সদর থানার ওসি মাহে আলম বলেন, ‘ আমরা অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুরিশ পাঠিয়েছি। এব্যাপারে তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে। তবে এব্যাপারে ঝালকাঠি সদর উপজেলা আওয়ামীলের সভাপতি রশিদ হাওলাদার মুঠোফোনে  বলেন, ‘ জমি দখলের সাথে আমার কোন সম্পৃক্ততা নেই। এব্যাপারে আমি কিছুই জানিনা।
ক্যাপশন: ঝালকাঠির নৈকাঠিতে বেরা দিয়ে এক অসহায় পরিবারের জমি দখল করে নেয় প্রভাবশালীরা।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 72 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*