Home » জাতীয় » বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদের সংবাদ সম্মেলন

বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদের সংবাদ সম্মেলন

বৈষম্য-হয়রানির শিকার ডেন্টিস্ট্রি-তে ডিপ্লোমা সনদধারী ডেন্টাল টেকনোলজিস্টদের পেশাগত কাজে হয়রানি বন্ধের দাবীতে ও কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার মা ডেন্টাল কেয়ারের প্রোপাইটর মো: নায়েমুল হকের মুক্তির দাবীতে-
সংবাদ সম্মেলন

প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগণ, আমরা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন স্টেট মেডিকেল ফ্যাকাল্টি অব বাংলাদেশ কতৃক প্রদত্ত ডিপ্লোমা সনদধারী দেশের বিভিন্ন সরকারী, বেসরকারী চিকিৎসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ বেকার মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ডেন্টাল)বৃন্দ। অবহেলিত, বঞ্চিত এবং শ্রেনী বৈষম্য ও হয়রনির শিকার ১৫,০০০ (পনের হাজার) মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ডেন্টাল) দের চলছে চরম দুর্দিন। চরম অবহেলিত এবং বৈষম্যের যাঁতাকলে পৃষ্ঠ মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ডেন্টাল) দের কর্মসংস্থান এবং প্র্যাক্টিস রেজিষ্ট্রেশন প্রদানের যৌক্তিকতা আপনাদের অবগতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য অনুরোধসহ তুলে ধরছি। কারণ ডেন্টাল টেকনোলজিস্টদের নেই সরকারি চাকুরী, নেই প্রাইভেট প্র্যাক্টিস রেজিষ্ট্রেশন তাই পেশাগহ কাজে আমরা বৈষম্য-হয়রানির শিকার হয়ে আমাদের কষ্টের কথাগুলো আমরা আপনাদের জানাতে চাই।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন স্টেট মেডিকেল ফ্যাকাল্টি অব বাংলাদেশ এর অধিভুক্ত বর্তমান ০৪ (চার) বছর মেয়াদী মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ডেন্টাল) ডিপ্লোমা কোর্স। দেশের বিভিন্ন সরকারী এবং বেসরকারী মেডিকেল কলেজ এর বিডিএস পাশকৃত ডেন্টাল সার্জন এবং অধ্যাপকগণ এই মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ডেন্টাল) ডিপ্লোমাদের শ্রেনীকক্ষে পাঠদানসহ হাতে-কলমে শিক্ষাদান করে থাকেন। বর্তমানে ০৭ (সাত) টি সরকারী এবং ৮৫ (পঁচাশি) টি বেসরকারী প্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ডেন্টাল) দের সংখ্যা ১৪,০০০-১৫,০০০ প্রায়। প্রতি বছর প্রায় ৩৫০০ জন করে এই সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে এবং বাড়ছে বেকারত্বের সংখ্যা। সরকারী চাকুরিতে ডেন্টাল টেকনোলজিষ্টদের পদ সংখ্যা মাত্র ৫১৫ টি। এর মধ্যে খালি আছে মাত্র ১৪ টি পদ। দীর্ঘদিন যাবত এ পদে সরকারী নিয়োগ না থাকায় প্রায় ৪০০০ (চার হাজার) মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ডেন্টাল) দের চাকরির বয়স শেষ হয়ে গেছে।

পর্যাপ্ত চাকরির সুযোগ নেই, প্র্যাক্টিস করার অনুমতি নেই তা সত্বেও সরকার প্রতি বছর নতুন ইনিস্টিটিউট এর অনুমোদন দিয়েই যাচ্ছে। পর্যাপ্ত চাকরির সুযোগ আছে এবং প্রাইভেট প্র্যাক্টিস এর অনুমোদন আছে ইনস্টিটিউট গুলোর এই রকম প্রলোভনে পড়ে আমরা ০৪ (চার) বছরের ডিপ্লোমা করেছিলাম। কিন্ত আজ যখন আমরা চাকরি না থাকার দরুণ জীবিকার তাগিদে প্রাইভেট চেম্বার খুলে প্র্যাক্টিস করছি সরকার ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে আমাদের বিভিন্ন ভাবে জেল জরিমানার মাধ্যমে হয়রানি এবং সামাজিকভাবে হেয় করছে। সারা দেশের মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ডেন্টাল) জাতি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাচ্ছি। কারন মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট ডেন্টালগণ দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী এবং তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতার আলোকে প্র্যাক্টিস রেজিষ্ট্রেশন পাবার যোগ্য কিন্ত দীর্ঘকাল সরকারী সিদ্ধান্তের অভাবে আমরা আমাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত এবং অবহেলিত। মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট ডেন্টালদের সম শিক্ষাগত যোগ্যতা, সমবেতন স্কেল ও সম-পদ-মর্যাদা সম্পন্ন এবং একই নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষের অধীনে কর্মরত মেডিকেল এ্যাসিসটেন্টদের প্র্যাক্টিস রেজিষ্ট্রেশন রয়েছে-যা আমাদের নেই।

স্টেট মেডিকেল ফ্যাকাল্টি অব বেঙ্গল থেকে ডিপ্লোমা সনদধারীরা বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল থেকে প্র্যাক্টিস রেজিষ্ট্রেশন পেয়ে থাকেন অথচ আমরা এই দেশের নাগরিক হয়ে চার বছর এর ডিপ্লোমা পাশ করে রেজিষ্ট্রেশন পাচ্ছি না যা ডেন্টাল টেকনোলজিষ্টদের জন্য চরম বৈষম্যমূলক। তাই এই সংক্রান্ত বিষয়ে আপনাদের সুদৃষ্টি এবং সমর্থন কামনা করছি।

স্বাধীনতা পরবর্তী ৪৪ বছরেও মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ডেন্টাল) দের দৃশ্যমান কোন ভাগ্য উন্নয়ন ঘটেনি। অথচ অব্যাহত রোগীর চাপ বাড়তে থাকায় হাসপাতাল গুলোতে ডাক্তার, নার্স এবং মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট ঠিকই বেড়েছে। দেশের ষোল কোটি জনসংখ্যার দন্ত চিকিৎসার জন্য মাত্র ৫১৫ জন সরকারী নিয়োগ প্রাপ্ত ডেন্টাল টেকনোলজিষ্ট যা সত্যিই অতি নগন্য। আবেগ তাড়িত হয়ে আজ তাই বলতে হচ্ছে কেন এই বৈষম্য?

আমরা তো এই দেশেরই নাগরিক। আমাদেরও রয়েছে সামাজিক মর্যাদা নিয়ে বাঁচার অধিকার। যেহেতু দীর্ঘদিন সরকারী চাকরিতে কোন নিয়োগ নেই সেহেতু ডেন্টাল টেকনোলজিষ্টদের প্র্যাক্টিস রেজিষ্ট্রেশন আজ সময়ের দাবী হয়ে দাঁড়িয়েছে। বাবা-মা তাদের কষ্টার্জিত টাকা দিয়ে আমাদের অনেক আশা নিয়ে লেখা পড়া শিখিয়েছেন। চাকরি নাই প্র্যাক্টিস এর অনুমতি নাই, তাহলে কি আমরা সারাজীবন মেরুদন্ডহীন প্রানীর মত অন্যের গলগ্রহ হয়ে ব্যাক্তিত্বহীনভাবে সমাজ এবং পরিবার তথা দেশের বোঝা হয়ে জীবন যাপন করব? প্রশ্ন রইলো আপনাদের কাছে।

মাননীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী মহোদয়কে আমরা আমাদের ন্যায় সঙ্গত দাবীর কথা জানিয়েছি। এই সংক্রান্ত একটা ফাইল স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ে দীর্ঘদিন যাবত সিদ্ধান্তহীনভাবে আটকে আছে। আপনাদের সমর্থন পেলে সরকারী সিদ্ধান্তে হয়তোবা দ্রুতই মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট ডেন্টালদের প্র্যাক্টিস এর অনুমতি প্রদানে সরকার এগিয়ে এসে ডেন্টাল টেকনোলজিস্টদের বিএমডিসি কর্তৃক রেজিষ্ট্রেশন প্রদানের মাধ্যমে পেশাগত কাজে হয়রানি বন্ধ করিবে এই প্রত্যাশায় আজকের এই সংবাদ সম্মেলন। নতুবা ডেন্টাল টেকনোলজিস্টদের মাঝে যে চরম ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে তা যে কোন সময় যে কোন উদ্ভুত পরিস্থিতির সৃষ্টি করিতে পারে।

জাতির বিবেক সাংবাদিক বন্ধুগণ, এতক্ষণে নিশ্চয় আপনারা মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট ডেন্টালদের ন্যায় সঙ্গত দাবীর বিষয়ে স্পষ্ট অবগত হয়েছেন। এবং মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট ডেন্টালদের প্রতি অবহেলা ও বৈষম্য দেখে ব্যাথিত হয়েছেন এবং আমাদের ন্যায়সঙ্গত দাবীর সাথে একমত পোষন করে, যথাযথ সংবাদ প্রকাশ করে গেজেট নোটিফিকেশনের মাধ্যমে প্র্যাক্টিস রেজিষ্ট্রেশন প্রদানের পথ সুগম করতে পেশাগত কাজে হয়রানি বন্ধ করিতে সহযোগিতা করবেন বলে সারা দেশের মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ডেন্টাল)দের বিশ্বাস। যদি অতিসত্ত্বর ডেন্টাল টেকনোলজিস্টদের বিএমডিসি কর্তৃক প্রাইভেট প্র্যাক্টিস রেজিষ্ট্রেশনের ব্যবস্থা না করা হয় এবং প্রশাসনকে বিভ্রান্ত করে স্বাস্থ্য সেবায় অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করার উদ্দেশ্যে ডেন্টাল টেকনোলজিস্টদের হয়রানি করা হয়, সরকারের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করা হয় তাহলে আমরা সারা দেশে আমাদের প্রতিনিধিত্বকারী পেশাজীবী সংগঠন বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদের পক্ষ থেকে সাংগঠনিক কঠোর কর্মসূচী দিতে বাধ্য হবো।

সর্বশেষে আমরা মনে করি ডেন্টাল টেকনোলজিস্টদের নূন্যতম প্রাইভেট প্র্যাক্ট্রিসের মাধ্যমে দেশের হাজার হাজার েেডন্টাল ডিপ্লোমাধারীগণ বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্ত হয়ে আপামর জনগণের প্রাথমিক দন্ত চিকিৎসাসেবা প্রদানের মাধ্যমে উন্নত সমাজ গঠনে ভূমিকা পালন করতে পারবে। উপরোক্ত বিষয়সমূহ সুবিবেচনা করত: এই বিশাল দক্ষ জনগোষ্ঠির জীবিকা নির্বাহের লক্ষ্যে সীমিত আকারে প্রাইভেট প্র্যাক্টিসে হয়রানি অত্যন্ত অমানবিক, লজ্জাজনক এবং বিবেক বর্জিত কাজ। আমরা এই অমানবিক কাজের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সাথে অনতিবিলম্বে ডেন্টাল টেকনোলজিস্টদের পেশাকে নিরাপদ রাখিতে দেশরতœ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টিও সহযোগীতা কামনা করছি।
বিনীত নিবেদক
সারাদেশের মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ডেন্টাল)দের পক্ষে-

সভাপতি
বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদ
জেলা শাখা কিশোরগঞ্জ

সাধারন সম্পাদক

বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদ জেলা শাখা কিশোরগঞ্জ

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 86 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*