Home » খেলাধুলা » বাংলাদেশ-পাকিস্তান লড়াইয়ে প্রস্তুত ইডেন

বাংলাদেশ-পাকিস্তান লড়াইয়ে প্রস্তুত ইডেন

বাংলার কন্ঠস্বরঃ

সুপার টেনের নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ দল মোকাবিলা করবে পাকিস্তানের। ম্যাচটি বুধবার বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে ৩টায় শুরু হবে কলকাতার ইডেন গার্ডেনে।

প্রথম পর্বের সবগুলো ম্যাচেই নিজেদের প্রতিভার ঝলক দেখিয়ে সুপার টেনের টিকিট নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ দল। নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে তুলে নিয়েছে ৮ রানে জয়। দ্বিতীয় ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হলেও বাংলাদেশ ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ৮ ওভারে সংগ্রহ করেছিল ৯৪ রান। আর শেষ ম্যাচে ওমানের বিপক্ষে পেয়েছে ৮ উইকেটে জয়।

প্রতিটি ম্যাচেই তাদের পারফরম্যান্স ছিল দুর্দান্ত। এই অসাধারণ পারফরম্যান্সে গ্রুপ সেরা হয়েই বাংলাদেশ দল উঠে এসেছে টি২০ বিশ্বকাপের মূলপর্বে। জয়ের এই ধারা অব্যাহত রেখেই মূলপর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে তারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে টি২০-তে শক্তিশালী দল পাকিস্তানের। এই ম্যাচে বাংলাদেশ দল জয়ের বিকল্প আর কিছু ভাবছে না।

পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক টি২০ পারফরম্যান্স বেশ সাফল্যমণ্ডিতই বলতে হবে। সদ্য সমাপ্ত এশিয়া কাপে বাংলাদেশের কাছে হেরেই পাকিস্তান দলকে বিদায় নিতে হয়েছেছিল টুর্নামেন্ট থেকে। তবে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের পরিসংখ্যান কিন্তু পাকিস্তানের পক্ষেই কথা বলছে। তাইতো বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা সম্প্রতি নিজেদের পারফরম্যান্স ভালো হওয়া সত্ত্বেও ফেবারিটের তকমা গায়ে ঝুলাতে চান না।

পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশ দল সর্বপ্রথম সাফল্য পায় সেই ১৯৯৯ সালে বিশ্বকাপ পর্বে। এরপর তাদের আরেকটি জয়ের জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে প্রায় দেড় যুগ। তাইতো পাকিস্তানকে তাদের সম্প্রতি পারফরম্যান্সের বিচারে ছোট করে দেখার অবকাশ নেই বাংলাদেশ দলের।

এ অবধি বাংলাদেশ পাকিস্তানের বিপক্ষে ৯টি টি২০ ম্যাচ খেলেছে। যার মধ্যে বাংলাদেশ ৭টিতেই পরাজিত হয়েছে। জয় পেয়েছে মাত্র ২টি ম্যাচে। এদিক দিয়ে পাকিস্তান এগিয়ে গেলেও অন্য পরিসংখ্যানে কিন্তু বাংলাদেশ দলই এগিয়ে আছে। আর তা হলো- পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি২০ মিলিয়ে সবশেষ পাঁচটি ম্যাচে পরাজিত হয়নি বাংলাদেশ। যা তাদের জন্য একটু প্রেরণা যোগাতেই পারে।

তবে মাশরাফি কিন্তু পাকিস্তানকেই এগিয়ে রাখছেন ফেবারিট হিসেবে। তার মতে, পাকিস্তানের ক্রিকেট ইতিহাস সমৃদ্ধ। তাই এ ম্যাচে পাকিস্তানই তার কাছে ফেবারিট।

সোমবার পরীক্ষা শেষ করে দলের সাথে যোগ দিয়েছেন নির্ভরযোগ্য বোলার তাসকিন আহমেদ। তবে মুস্তাফিজুর রহমান চোট কাটিয়ে মাঠে ফিরতে পারবেন কিনা তা নিয়ে এখনো সংশয় রয়েছে।

অন্যদিকে, পাকিস্তানের অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদিও জ্বরে ভুগছেন। তাকে দলের সাথে অনুশীলনেও দেখা যায়নি। তাই তিনি এই ম্যাচে মাঠে নামবেন কিনা সেটা নিয়েও আছে সংশয়।

সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটারদের মনে আশা জাগালেও তারা এটা ধরেই বসে থাকতে চান না। প্রতিটি খেলাই নতুন ইতিহাসের জন্ম দেয়। তাই নতুন উদ্যোমেই তারা এই ম্যাচে পাকিস্তানের মোকাবিলা করতে চান।

 

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 58 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*