Home » জাতীয় » রায়ের অনুলিপি পেলে পদক্ষেপ: কামরুল

রায়ের অনুলিপি পেলে পদক্ষেপ: কামরুল

বাংলার কন্ঠস্বরঃ

আদালতকে অসম্মান করায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানার যে শাস্তি পেয়েছেন, সেই রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি দেখে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবেন বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম।

‘নৈতিকতার প্রশ্নটি ব্যক্তিগত’

আগের দিন রায়ের পর পদত্যাগের দাবি ওঠার মধ্যে সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে অংশ নেন কামরুল।

 

এরপর সচিবালয়ে নিজের কার্যালয়ে ফিরলে সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখে তিনি বলেন, “রায়ের অনুলিপি পেলে পরবর্তী পদক্ষেপ…”

 

সাংবাদিকরা আরও প্রশ্ন করলেও অ্যাডভোকেট কামরুল শুধু এই বাক্যটিই বলেন।

 

কামরুলের সঙ্গে একই দণ্ডে দণ্ডিত মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকও মন্ত্রিসভার বৈঠকে ছিলেন। তিনি সাংবাদিকদের কোনো কথাই বলেননি।

 

মার্চের শুরুতে যুদ্ধাপরাধী মীর কাসেম আলীর আপিলের রায় নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে প্রধান বিচারপতিকে জড়িয়ে বক্তব্য দিয়েছিলেন কামরুল ও মোজাম্মেল।

 

ওই বক্তব্যের কারণে আদালত অবমাননার দায়ে দোষী সাব্যস্ত করে তাদের ৫০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড করে সর্বোচ্চ আদালত।

 

একটি গোলটেবিল বৈঠকের ওই বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়ে ভবিষ্যতে আর তা না করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে শাস্তি এড়াতে চেয়েছিলেন দুই মন্ত্রী।

 

তবে তা প্রত্যাখ্যান করে রায় ঘোষণার সময় প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা বলেন, আদালত অবমাননার বিষয়ে দেশের জনগণকে একটি বার্তা পৌঁছে দিতেই দুই মন্ত্রীকে এ দণ্ড।

 

রায়ের পর এ বিষয়ে কোনো কথা বলতে চাননি দুই মন্ত্রী। সরকারের পক্ষ থেকেও কেউ কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি। তবে বিএনপির পক্ষ থেকে দণ্ডিত দুই মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করা হয়েছে।

 

আইনজীবীদের এক পক্ষ বলেছেন, এই রায়ের কারণে দুই মন্ত্রীর মন্ত্রিত্ব না থাকার কোনো বিধান সংবিধানে নেই। অন্য পক্ষের দাবি, ‘শপথ ভঙ্গের’ কারণে তারা মন্ত্রী থাকার যোগ্যতা হারিয়েছেন।

 

মন্ত্রিসভা বৈঠকের পর আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, কামরুল ও মোজাম্মেলের মন্ত্রী থাকার বিষয়ে আইনগত কোনো বাধা নেই। তবে নৈতিকতার বিষয়টি যার যার বিবেচনার ব্যাপার।

 

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের একজন কর্মকর্তা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, দণ্ড হওয়ার দুই দিন আগেই মন্ত্রিসভার বৈঠকে অংশ নেওয়ার জন্য দুই মন্ত্রীকে ‘কেবিনেট ফোল্ডার’ দেওয়া হয়েছিল।

 

“দণ্ডিত করে সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের পরেও দুই মন্ত্রীর কাছ থেকে ফোল্ডার ফেরত নেওয়া হয়নি। তাই মন্ত্রিসভার বৈঠকে অংশ নিতে কোনো বাধা নেই, আর তারা তো পদত্যাগও করেননি।”

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 44 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*