Home » জাতীয় » গ্যাসের সমস্যায় কাশিমপুর কারাগার

গ্যাসের সমস্যায় কাশিমপুর কারাগার

বাংলার কন্ঠস্বরঃ

গাজীপুরের কাশিমপুরের চারটি কারাগারেই গ্যাসের সংকট চলছে।

কারা কর্তৃপক্ষ জানায়, জ্বালানি কাঠ দিয়ে কয়েক হাজার বন্দির রান্না করতে হচ্ছে। এতে অতিরিক্ত খরচের সঙ্গে সঙ্গে ঝামেলাও পোহাতে হচ্ছে।

তিতাস গ্যাস এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানালেও কার্যত সমস্যা সমাধানে কোনো উদ্যোগ দেখা যাচ্ছে না।

কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এর সুপার সুব্রত কুমার বালা বলেন, প্রায় এক বছর আগে এ কারাগারে যোগদানের পর থেকেই তিনি এখানে গ্যাস সংকট দেখছেন।

“চুলায় গ্যাসের চাপ একেবারে নেই বললেই চলে। ফলে আমাদের কারাগারের প্রায় ১১শর মতো বন্দির তিন বেলার রান্না করতে হচ্ছে লাকড়ি দিয়ে। এতে অতিরিক্ত অর্থ ও ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে।”

এ ব্যাপারে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড কার্যালয়ে আবেদন করা হলেও এখনও সমস্যার সমাধান হয়নি বলেও তিনি জানান।

কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারের সুপার মো. মিজানুর রহমান বলেন, গ্যাস সংকটের কারণে তার কারাগারে দেড় হাজারের বেশি বন্দির রান্না করতে হচ্ছে লাকড়ি দিয়ে।

কাশিমপুর কেন্দ্রীয় মহিলা কারাগারের ভারপ্রাপ্ত সুপার সুব্রত কুমার বালা বলেন, এ কারাগারে তিনশর বেশি নারী বন্দি রয়েছেন।

তাদেরও একই সমস্যা পোহাতে হচ্ছে বলে জানান তিনি।

একই সমস্যার কথা বলেন কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এর জেলার নাশির আহমেদ।

তার কারাগারের দুই হাজারের অধিক বন্দির রান্না করতে হচ্ছে জ্বালনি কাঠ দিয়ে। তবে খরচ বাড়লেও বন্দিদের খাবার তারা ঠিক সময়েই দিচ্ছেন বলে জানান নাশির।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের কালিয়াকৈরের চন্দ্রা কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক মো. সুরুজ আলম বলেন, ওই কাজের টেন্ডার হয়েছে প্রায় মাস খানেক আগে। এখন সড়ক ও জনপথ বিভাগে রোড কাটিংয়ের জন্য প্রায় ১৫দিন আগে আবেদন করা হয়েছে। কিন্তু তাদের কার্যক্রম শেষ না হওয়ায় গ্যাস লাইনের কাজ বিলম্বিত হচ্ছে।

এ ব্যাপারে গাজীপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান আবুল কাশেম মো. নাহিন রেজা বলেন, “এ ধরনের রোড কাটিংয়ের আবেদন তার হাতে আসেনি। পেলে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 52 - Today Page Visits: 2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*