Home » খুলনা » যয়শোর » ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে বেনাপোলের অসাধু ব্যবসায়ীরা সক্রিয়

ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে বেনাপোলের অসাধু ব্যবসায়ীরা সক্রিয়

বেনাপোল প্রতিনিধি(যশোর) : আর কিছুদিন পর অনুষ্ঠিত হবে মুসলিম মিল্লাতের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান ঈদুল আযহা এই ঈদকে পুঁজি করে বেনাপোলের অসাধু ব্যবসায়ীরা ছুটছে কাড়ি কড়ি টাকা আয়ের মত্ত আশায়। নাওয়া-খাওয়া হারাম করে ছুটছে সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে কর্মরত কর্মকর্তাদের প্রচুরপরিমানে অর্থ উপঢৌকন দিয়ে অবৈধ্য সুবিধা নিয়ে পন্য শুল্ক ফাঁকি দিয়ে বা পন্যের ডিক্লিয়ারেশন পাল্টিয়ে বৈধ্য পথে পন্য আমদানি করতে। আর চোরাকারবারীরা ছুটছে ভারত হতে চোরাই পথে আমদানীকৃত পন্য ঢুকিয়ে কথিত বেনাপোল হতে ঢাকা পর্যন্ত বিজিবি,থানাপুলিশ,ডিবি পুলিশ ও র‌্যাব এর অসাধু কর্মকর্তাদের সহোযোগীতায় গড়ে ওঠা শক্তিশালি সিন্ডিকেট সুবিধায় অনায়াসে পন্য পৌছানোর রুটটি ঝালিয়ে নিতে। সামনে ঈদ তাই কর্মকর্তাদের পরিবারের সদস্যদের জন্য দামী শাড়ি,থ্রিপিস,শাল বা ভারতীয় প্রসাধনী ও খাদ্য দ্রব্যের উপঢৌকন সহ দেখা করতে যাচ্ছে অগ্রীম ঈদ শুভেচ্ছা পৌছাতে বা পছন্দের স্যার এর কাছ হতে দুয়া নিতে।ভারত সিমান্ত ঘেসা বেনাপোল জনপদে বাংলাদেশের বৃহৎ স্থল বন্দর হওয়ায় এই পথ দিয়ে আমদানি কারকরা ভারত হতে বেশীর ভাগ পন্য আমদানি করে থাকে কেননা এই পথে সময় ও অর্থ দুটোই কম লাগে বেনাপোল স্থল বন্দর দিয়ে সরকার বছরে তিন(৩) হাজার কোটির ও বেশী রাজস্ব আহোরন করে থাকে । বেনাপোল স্থল বন্দর দিয়ে রাজস্ব আহোরনে সুনামের চেয়ে শুল্ক ফাঁকি,কাস্টমস কর্মকর্তাদের অর্থবানিজ্যে চাকরি যাওয়া, অবৈধ্য চাহিদায় কর্মচারী কতৃক কাস্টমস্ কর্মকর্তা লাঞ্চিত হওয়া, কমিশনার,এসি,জেসি দূর্নিতীর দায়ে বদলী হওয়া ও আমদানীকারকদের সহোযোগী সিএন্ড এফ এজেন্ট লাইসেন্স শুল্কফাঁকির অভিযোগে বাতিল হওয়ার দূর্নাম বেশী। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সি এন্ড এফ ব্যবসায়ী জানান বেনাপোল কাস্টমস্ েঈদের আগে বদলী হয়ে নতুন কমিশনার যোগ দেওয়ায় এবার ব্যবসা ভালো হবে তিনি জানান নব নিযুক্ত কমিশনার বেনাপোলে এর আগে এসি ও জেসি হিসাবে কর্মরত ছিলো ।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 60 - Today Page Visits: 2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*