Home » সর্বশেষ সংবাদ » গ্রুপিং,সংঘর্ষ পাল্টা সংঘর্ষ ঘিরে চলছে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা বিএনপির রাজনীত

গ্রুপিং,সংঘর্ষ পাল্টা সংঘর্ষ ঘিরে চলছে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা বিএনপির রাজনীত

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : গ্রুপিং,সংঘর্ষ পাল্টা সংঘর্ষ ঘিরে চলছে সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা  বিএনপির রাজনীতি।

তিন বলয়ে বিভক্ত হয়ে পড়েছে উপজেলা আহবায়ক কমিটি। যুবদল,ছাত্রদল,শ্রমিকদল,কৃষক দল,সেচ্ছাসেবকদল  সহ বিভিন্ন অংঙ্গ সংগঠন সমূহে ভবিষ্যতে সভাপতি,সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক সহ বিভিন্ন পদ ভাগাতে এসব অংঙ্গ সহযোগী সংগঠনের কর্মীরাও নেতৃত্ব পাবার আশায় তিন বলয়ে বিভক্ত। সেই সাথে কতিপয় নেতকর্মীরা গ্রুপে অদল বদল করছেন। কেউ আবার দুই নৌকায় পা রাখছেন। স্থানীয় লোকজন বলছেন যেনো এক তিলিছমাতি কান্ড। কখনও আছপিয়া বলয়,কখনও নাছির বলয়,কেউ আবার কেন্দ্রীয় বলয়। পদ ভাগাতে হতাশ নতুন প্রজন্মের তরুণ,যুবরা এই সুযোগে অন্দর মহলের পল্টিবাজ নেতারা বিদ্রোহে জড়াচ্ছেন এদের। ২৭ আগস্ট শনিবার বিশ্বম্ভরপুর বিএনপির তিন খন্ডের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ বাঁধে,এ সংবাদটি ইলেক্ট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ায় প্রচার হয়। বিষয়টি নিয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে একটি সূত্র জানায়।

উপজেলা বিএনপি সূত্র জানায়, ২০১৫ সালের ১৭নভেম্বর বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটিতে ঠাই পাওয়া,না পাওয়া নিয়ে প্রকাশ্যে গ্রুপিং শুরু হয়,এবং নাছির উদ্দিন চৌধুরী ও ফজলুল হক আছপিয়া বলয়ে বিভক্ত হয়ে পরে উপজেলা বিএনপি ও অংঙ্গ সংগঠন সমূহ।

পরে দলীয় স্বার্থ বিবেচনায় ২০১৫ সালের ২২আগস্ট গ্রুপের ঐক্য বদ্ধ হয়ে আহবায়ক কমিটির প্রথম সভায় মিলিত হন। কিন্তু বছর যেতে না যেতেই সম্প্রতি জুন মাসে হঠাৎ করে দুই থেকে তিন ভাগে বিভক্ত হয়ে ইফতার কর্মসূচি পালন করে পৃথক ৩টি গ্রুপ। গত ২৭ আগস্ট শনিবার বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনের জন্য পৃথক তিন গ্রুপ প্রস্তুতি সভা করে।

এক পক্ষের নেতৃত্বে রয়েছেন উপজেলা বিএনপির আহবায়ক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ, অপর পক্ষের নেতৃত্বে রয়েছেন উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির প্রথম সদস্য অ্যাড,আব্দুল হক, এছাড়া আরেক পক্ষের নেতৃত্বে রয়েছেন উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য মদিনা আক্তার।
সুত্রে জানা যায়,বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা বিএনপির আহবায়ক হারুনুর রশিদ নেতৃত্বাধীন গ্রুপ বর্তমানে জেলার কোন নেতৃত্বকে অনুস্মরণ করছে না। আহবায়ক জানান তিনি কেন্দ্রীয় কর্মসূচির নির্দেশ অবলম্বনে কর্মসূচি পালন করে থাকেন। তবে সুত্রে জানা যায়, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সুনামগঞ্জ ৪ আসনের সাবেক সাংসদ ফজলুল হক আছপিয়া এবং জেলা ছাত্রদল আহবায়ক নুরুল ইসলাম নুরুলের নেতৃত্ব অনুস্মরণ করতেন তিনি। এর পর জেলা বিএনপির আহবায়ক নাছির উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্ব অনুস্মরণ করেন। বর্তমানে কোন নেতৃত্বকেই অনস্মরণ না করে কৌশলী অবস্থানে রয়েছেন উপজেলা বিএনপির আহবায়ক হারুনুর রশিদ।

এদিকে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির প্রথম সদস্য অ্যাড,আব্দুল হক নেতৃত্বাধীন গ্রুপ জেলা বিএনপির আহবায়ক নাছির উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্ব অনুস্মরণ করে দলীয় কর্মসূচি পালন করছে।
অপরদিকে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য মদিনা আক্তার জেলা বিএনপির ফজলুল হক আছপিয়া ও নুরুল ইসলাম নুরুলের নেতৃত্ব অনুস্মরণ করছেন। তার সাথে রয়েছেন জেলা যুবদল যুগ্ন আহবায়ক অ্যাড.মামুনুর রশিদ কয়েছ, উপজেলা যুবদল যুগ্ন আহবায়ক ও ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আশিকুর রহমান আশিক, উপজেলা ছাত্রদল সভাপতি নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

এ বিষয়ে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য মদিনা আক্তার বলেন কমিটির নেতৃবৃন্দের পরামর্শ না নিয়ে ব্যক্তিগত ভাবে দলীয় কাজ করলে গ্রুপিং তো হবেই।
অপর গ্রুপের নেতা উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির প্রথম সদস্য অ্যাড,আব্দুল হক বলেন আহবায়ক কমিটির প্রায় ৭৫শতাংশ সদস্য আমরা এক সঙ্গে আছি, আমরাই মূলধারা। আহবায়ক বিএনপির আদর্শ বাদ দিয়ে রাজনীতি করেন।

এ বিষয়ে বিএনপির আহবায়ক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ  দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময়ে প্রতিবেদককে জানান উপজেলা আহবায়ক হিসেবে ডাকা তার শন্তিপূর্ন সভা বানচালে হামলা করা হয়। প্রতিপক্ষ অ্যাড আব্দুল হক বলেন তার পৃথক সভাস্থলে যেতে বরং তার গতিরোধ করে হামলা করা হয়েছে। এদিকে সংঘর্ষে জড়িতদের কাউকেই মাঠে পাওয়া যাচ্ছে না। এদিকে একাধিক আ’লীগ নেতা জানান শন্তিপূর্ন কর্মসূচিতে কোন বাধা দেয়া হবে না। কিন্তু এই সংঘের্ষের শান্তিপূর্ন সমাধান না হলে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় বিএনপিকে কোন কর্মসূচি পালন করতে দেয়া হবে না

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 63 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*