Home » জাতীয় » সুনামগঞ্জের হাওর এলাকায় আবাসিক স্কুল হবে: প্রধানমন্ত্রী

সুনামগঞ্জের হাওর এলাকায় আবাসিক স্কুল হবে: প্রধানমন্ত্রী

সুনামগঞ্জের হাওর এলাকায় আবাসিক স্কুল গড়ে তোলা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, নৌকায় করে হাওরের বড় বড় ঢেউ পাড়ি দিয়ে শিক্ষার্থীরা স্কুলে যাতায়াত করে। তাদের নিরাপত্তার জন্যই এ ব্যবস্থা হবে।
আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। এ সময় তিনি সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার লোকজনের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।
সুনামগঞ্জের হাওর এলাকা সম্পর্কে অভিজ্ঞতা আছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আমি হাওর এলাকায় ঘুরেছি। একইভাবে পাহাড়েও গিয়েছি। আবাসিক স্কুল প্রতিষ্ঠার জন্য দুর্গম হাওর ও পাহাড়ি এলাকার কিছু নির্দিষ্ট স্থান চিহ্নিত করতে হবে। সেখানে আবাসিক স্কুল গড়ে তোলা হবে। এতে শিক্ষার্থীদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিত হবে। একই সঙ্গে এসব এলাকায় ঝরে পড়া শিক্ষার্থীর হার কমবে।’
ছাত্রীদের ভালো ফলে আনন্দ প্রকাশ করে শেখ হাসিনা বলেন, শিক্ষার ক্ষেত্রে ছেলেমেয়ে সবাইকে সমান গুরুত্ব দিতে হবে। এরাই ভবিষ্যতে দেশের নেতৃত্ব দেবে। একসময় মেয়েরা পিছিয়ে ছিল, এখন তারা এগিয়ে যাচ্ছে। সবাইকে এগিয়ে যেতে হবে।

ভিডিও কনফারেন্স প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের কারণেই আজ এভাবে ঢাকা থেকে দুটি জেলায় সরাসরি কথা বলা সম্ভব হয়েছে। আমরা মতবিনিময় করতে পারছি।’ সব ক্ষেত্রে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিত করার ওপর শেখ হাসিনা জোর দেন।

এইচএসসির ফলাফল প্রকাশের জন্য সুনামগঞ্জ জেলাকে মনোনীত করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম। তিনি সুনামগঞ্জের শিক্ষার সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরেন। সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষ থেকে আরও বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মো. আবদুছ ছত্তার, শিক্ষার্থী জয়ন্ত পাল, রুবাইয়া আলতাফ, আয়েশা ইসলাম ও এমরান শিকদার।

উল্লেখ্য গত ২৩ জুলাই সুনামগঞ্জে হাওরের শিক্ষা নিয়ে নৌকা না পেলে ক্লাস ‘মিস’ শিরোনামে প্রথম আলোতে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 49 - Today Page Visits: 2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*