Home » লাইফ স্টাইল » ঘনঘন খিদে কেন পায়?

ঘনঘন খিদে কেন পায়?

অনলাইন ডেস্ক: খিদে না হওয়া যেমন সমস্যা, তেমনই অনেকের কাছেই সবচেয়ে বড় সমস্যা বারবার খিদে পাওয়া। শারীরিক পরিশ্রম খিদে বাড়িয়ে দেয়, একথা ঠিক। তবু কম পরিশ্রমীদের কারো কারো কেন ঘনঘন খিদে পায়? দেখে নেওয়া যাক ১০টি কারণ।

১. যথাযথ পরিমাণ কার্বোহাইড্রেট না খাওয়াটা বারবার খিদে পাওয়ার সবচেয়ে বড় কারণ। ভাত, রুটি, পাঁউরুটি, পাস্তা জাতীয় খাবার কার্বোহাইড্রেটের সবচেয়ে সহজলভ্য উৎস। অনেকই অন্যান্য খাবার বেশি খেলেও পরিমাণমতো কার্বোহাইড্রেট খান না। ফলে বারবার খিদে পায়।

২. খাদ্যে যে জৈব রাসায়নিক উপাদানগুলি থাকে, তার মধ্যে জটিলতম গঠন ফ্যাট জাতীয় পদার্থের। হজমের গন্ডগোলের জন্য ফ্যাট ঠিক মতো না ভাঙলে, দেহের বর্জ্যের সঙ্গে বেরিয়ে যায়। ফলে শরীরের চাহিদা মেটাতে আবারও খিদে পায়।

৩. সঠিক অনুপাতে প্রোটিন না পেলেও ঘনঘন খিদে পায়। প্রাণীজ প্রোটিনের (মাছ, মাংস, ডিম) পাশাপাশি উদ্ভিজ প্রোটিন (ডাল) না খেলে দেহে অ্যামাইনো অ্যাসিড উৎপাদন ব্যাহত হয়।

৪. শিয়া বীজের নাম অনেকেই শোনেননি। দক্ষিণ আমেরিকার এই ফলের বীজ আকারে ছোট হলেও এতে রয়েছে দারুণ খাদ্যগুণ। প্রোটিন সমৃদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি এই বীজে রয়েছে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড। একবার এই বীজ খেলে অনেকক্ষণ খিদে পায় না। দুর্গম অভিযানে যাওয়ার সময় সেনাবাহিনীর মধ্যে এই বীজের ব্যবহারের নজির রয়েছে। ঘনঘন খিদে পায় যাদের, একবার শিয়ার বীজ খেয়ে দেখতেই পারেন।

৫. যতই মাছ-মাংস খান, শাকসব্জী জাতীয় খাবারও কিন্তু দেহের জন্য খুবই দরকারি। এতে থাকে ফাইবার। দেহে জলের পরিমাণ কমে গেলে ফাইবার কিছুক্ষণের জন্য পরিস্থিতি সামাল দিতে পারে। তবে তাতেও কাজ না হলে আবারও বসতে হয় খাওয়ার টেবিলে।

৬. খুব বেশি ফল খাচ্ছেন? এটাও কিন্তু খিদে বাড়ার কারণ হতে পারে। ফলে থাকে ফ্রুক্টোজ জাতীয় শর্করা। যা খিদে বাড়াতে সাহায্য করে।

৭. মানুন বা না মানুন, খিদে অনেক সময়ই মাসিক। আপনি কি সবসময় খাওয়ার কথা চিন্তা করেন? খাবার সম্পর্কে চিন্তা থেকে অনেকেরই মনে ধারণা হয়, যে তার খিদে পেয়েছে।

৮. সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, খাওয়াদাওয়া অনেকের কাছেই সময় কাটানোর একটা উপায়। অবসর সময়ে অনেকে বই পড়ে কিংবা গান শুনে কাটাতে ভালবাসেন। সেরকমভাবেই কারও কারও শখ খাওয়া! মনোবিদদের মতে অন্তর্মুখী মানুষদের বেশিরভাগের কাছেই এখন খাওয়াটা অবসর বিনোদনের উপায় হয়ে উঠছে। তবে খাওয়াদাওয়া করাটা যে এদের শখের পর্যায়ে চলে গিয়েছে, সেটা এদের অনেকেই মানতে চান না।

৯. তবে, বারবার খিদে পাওয়ার অন্যতম বড় কারণ, খাওয়ার প্রতি অকৃত্রিম ভালোবাসা। ওজন এবং খরচের কথা না ভেবেই বারবার খেতে বসে যান যারা, তাদের বোধহয় কিছুতেই থামানোর উপায় নেই।

১০. পর্যাপ্ত ঘুম না হলেও বারবার খিদে পায়।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 56 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*