Home » জাতীয় » ৩ জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১৫, আহত ৩৫

৩ জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১৫, আহত ৩৫

নিউজ ডেস্ক: ব্রাহ্মণবাড়িয়া, টাঙ্গাইল এবং মাদারিপুরে পৃথক-পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় মোট ১৫ জন নিহত হয়েছে। এসব ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৩৫ জন।

এর মধ্যে আজ শুক্রবার সকালে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে যাত্রীবাহী বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে বরসহ একই পরিবারের ৮ জন নিহত হয়েছেন।

নিহতরা হলেন, মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ থানার রূপসপুর গ্রামের হাবিবুর রহমান, তার দুই ছেলে মো: কামরান ও আবু সুফিয়ান, আত্মীয় আলী হোসেন, মুর্শিদুর রহমান, মুক্তার মিয়া ও আব্দুল হান্নান, অজ্ঞাত পুরুষ (৪৫)। গুরুতর আহত তারেকুল ইসলাম ও অজ্ঞাত এক যুবককে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকাল ১০টার দিকে উপজেলার শশই নামক স্থানে সিলেট গামী এনা পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৭৮৫১) এর সাথে মৌলভী বাজার থেকে আসা বরযাত্রী বাহী নোহা মাইক্রোবাসের মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মাইক্রোবাসে থাকা বরযাত্রীসহ ৭জন মারা যায়। গুরুতর আহত অজ্ঞাত একজন জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে।

নিহতদের স্বজন ফয়সাল আহমেদ জানান, আবু সুফিয়ানের বিয়ে উপলক্ষে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ থেকে তারা সবাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া আসছিলেন।

এদিকে আজ শুক্রবার ভোরে ঢাকা-বঙ্গবন্ধু সেতু-উত্তরবঙ্গ মহাসড়কে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার পৌলিতে আজ একটি বাস উল্টে একজন নারীসহ চারজন নিহত ও অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ (টামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহতরা হলেন- ফিরোজ মিয়ার স্ত্রী আছমা আক্তার (৪০), করিম উদ্দিনের পুত্র মমিনুর (৪০), আব্বাস আলীর পুত্র আছাদুল হাবিব (১৫) ও সিদ্দিক মিয়ার পুত্র রিপন (৩০)। নিহত সবার বাড়ি লালমনিরহাটের পাটগ্রামে।

এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট জাহাঙ্গীর আলম জানান, লালমনিরহাট থেকে ঢাকাগামী একটি যাত্রীবাহী বাস ভোর সোয়া ৪টার দিকে পৌলী ব্রিজের ঢালুতে পৌঁছুলে হঠাৎ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। এতে অন্তত ২৪ জন আহত হন। সঙ্গে সঙ্গে তাদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানে ওই চারজন মারা যান।

অন্যদিকে আজ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের মাদারীপুরের রাজৈরের বড়ব্রিজ এলাকায় আজ বাস-মাহেন্দ্র সংঘর্ষে তিনজন নিহত ও ১৫ জন আহত হয়েছেন। এ সময় ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে এক ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট উদ্ধার অভিযান শুরু করে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, টেকেরহাট থেকে রাজৈরগামী তিন চাকার যান মাহেন্দ্রর সাথে বিপরীত দিক আসা বরিশাল থেকে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে দুইজন ও হাসপাতালে নেয়ার পর একজন মারা যান।

নিহতদের মধ্যে রাজৈরের মজুমদারকান্দি গ্রামের আলাউদ্দিন শেখের পুত্র বেলাল শেখ (৫০) ও ইশিবপুর ইউনিয়নের হাসানকান্দি গ্রামের বাবুল (৩৫) ঘটনাস্থলেই মারা যান। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় রাজৈরের শঙ্করদির মোতালেব মিয়ার মেয়ে মেরিন আকতার (২৭) ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান।

রাজৈর থানার এসআই নাজমুল হোসেন সাংবাদিকদের জানান, দুর্ঘটনায় আহতদের তাৎক্ষণিক রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 32 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*