Home » সম্পাদকীয় » খোলা কলাম » ডাক্তারি বিদ্যায় স্নাতক, বাংলাদেশ বনাম বিশ্ব

ডাক্তারি বিদ্যায় স্নাতক, বাংলাদেশ বনাম বিশ্ব

মাহবুব এম সিনাবী ।।
আমাদের দেশে ডাক্তারি বিদ্যায় স্নাতক বলতে বাংলাদেশ মেডিক্যাল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল আইন অনুসারে সাধারনত পাঁচ বছর মেয়াদী বিডি এস এবং এম বি বি এস কোর্সকে বুঝানো হয় । আন্তর্জাতিক নিয়মে পৃথিবীর যেকোনো দেশে বিজ্ঞান অনুষদে ১২ গ্রেড ( উচ্চ মাধ্যমিক অথবা সমমান / ডিপ্লোমা )সম্পূর্ণ করে এই বিদ্যায় ভর্তির নিয়ম থাকলেও বাংলাদেশে রয়েছে ভিন্ন ও না রকম নিয়ম । ১০ গ্রেড /মাধ্যমিক পর উচ্চ মাধ্যমিক সমমানের ডিপ্লোমা কোর্স তো চালু আছে কিন্তু নেই তার মান ।পারবেনা এরা এম বি বি এস / বি ডি ডি এস এ ভর্তি হতে । ডিপ্লোমা ছাড়ুন , ১২ গ্রেড এর পর ২ বছর অতিক্রম হলেই আপনার ডাক্তার হবার স্বপ্ন শেষ । কিন্তু কেন এই নিয়ম , যেখানে বাংলাদেশ ব্যাতিত সারা প্রিথিবীতে রয়েছে ভিন্ন এক নিয়ম । সেখানে বাংলাদেশ কেন ব্যাতিক্রম ?? তবে কি বাংলাদেশে ডাক্তার বেশি হয়ে গেছে ? যদি আপনি সায়েন্সর স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন ,জীবনের যেকোনো সময়ই আপনার ডাক্তার হবার ইচ্ছা হতে পারে । দরুন আপনি ১২ গ্রেড পর আপনি ইঞ্জিনিয়ারিং এ ভর্তি হলেন , কিছুদিন পর মনে হল এ পথ আপনার জন্য নয় , আপনি ডাক্তারী পেশায় হলে ভাল করতেন , ,অথবা মাধমিকের পর ডিপ্লোমা করেছেন মেডিক্যাল সম্পর্কিত কোন কোর্সে , এর পর মনে হল এম বি বি এস করবেন । কিন্ত ততদিনে অনেক বিলিম্ব করে ফেলেছেন , বাংলাদেশে আর ভর্তি হতে পারবেন না , যদিও দেশের বাহিরে এম বি বি এস / বি ডি ডি এস পড়তে তো পারবেন কিন্তু সেক্ষেত্রে কি বাংলাদেশ মেডিক্যাল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল
আপনাকে বাংলাদেশে প্র্যাকটিস করার অনুমোদন দিবে ? যদিও বিশ্বের যেকোনো দেশের মেডিকেল কাউন্সিল আপনাকে প্রাকটিস করার অনুমোদন দিবে লাইসেন্স এক্সামে উত্তীর্ণ হওয়ার সাপেক্ষে । বাংলাদেশে প্রচুর ডাক্তারের স্বল্পতা , আবার অধিকাংশ মেডিক্যাল কলেজ নয় মান সম্মত এসব কম বেশি আমরা সকলেই জানি ।
চলুন এবার চরম সত্য একটা তথ্য দেই বাংলাদেশ মেডিক্যাল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল সম্পর্কে, যা সারা বিশ্বে ব্যাতিক্রম এবং হাস্যকর ও বটে । শুধুমাত্র চায়না র উপর নির্ভর করে ইন্ডিয়া , নেপাল , পাকিস্থান সহ অনেক দেশ তাদের দেশে ডাক্তার সল্পতা পূরণ করতেছে । শতাদিক মেডি ক্যেল ইউনিভার্সিটি সারা বিশ্ব অনুমোদিত শুধুমাত্র বাংলাদেশ ব্যাতিত । যেখানে বাংলাদেশ মাত্র ৪৫ টি ইউনিভার্সিটিতে পড়ার অনুমোদন দিয়ে যাচ্ছে , যার অধিকাংশই অত্যন্ত ব্যয়বহুল । অপরদিকে বাংলাদেশে নিম্মনমানের বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ব্যাঙের ছাতায় ন্যায় গড়ে উঠছে , উপচে পরা রমরমা ব্যবসায় । আবার অধিকাংশ সরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও নয় মান সম্পূর্ণ ।
আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতেও বাংলাদেশ মেডিক্যাল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল এর ন্যায় নিয়ম থাকলেও সম্প্রীতি তারা এক রোখা আইন থেকে বের হয়ে আসছে । আশা করছি খুব শিগ্রই বাংলাদেশ ও বের হয়ে আসবে , যাতে বাংলাদেশে মেডিক্যাল শিক্ষার প্রসার হয় ,না থাকে কোন ডাক্তারের সল্পতা ।না দিতে হয় কোন শিক্ষার্থীর স্বপ্নের আত্তহুতি ।

লেখক:-
মাহবুব এম সিনাবী
গুয়াংক্সি , চায়না

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 43 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*