Home » জাতীয় » তনু হত্যাকান্ডের ১০ মাস: বাড়ছে ক্ষোভ ও হতাশা

তনু হত্যাকান্ডের ১০ মাস: বাড়ছে ক্ষোভ ও হতাশা

 

বাংলার কন্ঠস্বর: 

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্রী ও নাট্যকর্মী সোহাগী জাহান তনু হত্যাকাণ্ডের ১০ মাস পূর্ণ হচ্ছে আজ শুক্রবার। এদিকে যতই দিন যাচ্ছে ততই এ হত্যাকাণ্ডের বিচার পাওয়া নিয়ে তনুর বাবা-মা ও স্বজনদের মাঝে ক্ষোভ ও হতাশা ক্রমেই বাড়ছে।

ঘটনার পর থেকে তদন্তকারী সংস্থা একাধিকবার পরিবর্তন হলেও দীর্ঘ এসময়ে হত্যা রহস্যের মোটিভ উদঘাটন করা হয়নি। ঘাতকদের শনাক্ত করা কিংবা মামলার তদন্তে দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতিও নেই। মামলার অগ্রগতি নিয়েও মুখ খুলতে নারাজ তদন্ত সংস্থা সিআইডি।

জানা গেছে, গত বছরের ২০ মার্চ রাতে কুমিল্লা সেনানিবাসের ভেতরের একটি জঙ্গল থেকে কলেজছাত্রী সোহাগী জাহান তনুর লাশ উদ্ধার করা হয়। পরদিন তার বাবা কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট বোর্ডের অফিস সহায়ক ইয়ার হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে কোতোয়ালী মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

থানা পুলিশ ও ডিবির পর গত বছরের ১ এপ্রিল থেকে মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব পায় কুমিল্লা সিআইডি। গত বছরের মে মাসে সিআইডি তনুর জামা-কাপড় থেকে নেয়া নমুনার ডিএনএ পরীক্ষা করে ৩ জনের শুক্রানু পাওয়ার কথা গণমাধ্যমকে জানিয়েছিল এবং হত্যার আগে তনুকে ধর্ষণ করা হয়েছিল বলে তারা নিশ্চিত হয়েছিল।

এদিকে দীর্ঘ ১০ মাসেও তনু হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত বা গ্রেফতার করতে না পারা, সামরিক-বেসামরিক অর্ধশতাধিক ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা, দুই দফা ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে মৃত্যুর সুস্পষ্ট কারণ উল্লেখ করতে না পারা, এমনকি ডিএনএ পরীক্ষায় ৩ ধর্ষণকারীর শুক্রানু পেলেও এ পর্যন্ত ডিএনএ ম্যাচ করে ঘাতকদের শনাক্ত করতে না পারায় এ মামলার ভবিষ্যৎ কিংবা বিচার পাওয়া নিয়ে তনুর পরিবার, মানবাধিকার সংগঠনসহ বিভিন্ন মহলে সংশয় দেখা দিয়েছে।

তনুর মা আনোয়ারা বেগম সাংবাদিকদের বলেন, দেশে অনেক চাঞ্চল্যকর ঘটনার রহস্য উদঘাটন করা হয়, তাদের সাজাও হচ্ছে। কিন্তু তনুর খুনীরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছে। তনুর হত্যাকারীরা কী এতোটাই শক্তিশালী যে তাদের শনাক্ত করতে হিমশিম খেতে হবে। আমরা কোনো ব্যক্তি বা সংস্থার বিপক্ষে না, এ হত্যাকাণ্ডের সাথে যে বা যারা-ই জড়িত থাকুক না কেন তাদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও সিআইডি-কুমিল্লার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার জালাল উদ্দীন আহমেদ বলেন, মামলাটির তদন্ত নিজস্ব গতিতে চলছে, তাই তদন্তাধীন এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 36 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*