Home » সর্বশেষ সংবাদ » ব্যাংকের ভেতরেই শিক্ষিকার ৪০ হাজার টাকা ছিনতাই

ব্যাংকের ভেতরেই শিক্ষিকার ৪০ হাজার টাকা ছিনতাই

লালমনিরহাট প্রতিনিধি // লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা সোনালী ব্যাংকের ভেতর থেকেই নাজমা আক্তার নামে এক শিক্ষিকার উত্তোলনের ৪০ হাজার টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) বেলা ১২টার দিকে হাতীবান্ধা সোনালী ব্যাংকের ভেতরে ক্যাশ কাউন্টারের কাছে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী নাজমা আক্তার উপজেলার গোতামারী ইউনিয়নের ঘুটিয়া মঙ্গল পাড়া এলাকার রেজাউল করিমের স্ত্রী এবং গোতামারী মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকালে হাতীবান্ধা সোনালী ব্যাংকে টাকা উত্তোলনের জন্য যান নাজমা আক্তার। ৪০ হাজার টাকা উত্তোলনও করেন। এসময় পাশে দাঁড়িয়ে থাকা এক ব্যক্তি নাজমা আক্তারকে টাকাগুলো গুনে নিতে বলেন। উত্তরে নাজমা আক্তার বলেন, টাকা গুনতে হবে না। এসময় কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই ওই ব্যক্তি টাকা ছিনিয়ে নিয়ে সটকে পড়েন। ঘটনার আকস্মিকতায় বাকরুদ্ধ হয়ে যান নাজমা আক্তার।

শিক্ষিকা নাজমা আক্তার কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, আমি যখনই টাকা উত্তোলন করলাম, তখনই ওই ব্যক্তি বলল, টাকা গুনে নেন। আমি বললাম, গুনতে হবে না। তারপর উনি আবার বলল, ছেঁড়া আছে কি-না দেখেন। আমি তাতেও রাজি হয়নি। কিন্ত উনি জোর করে টাকাটা হাত থেকে নিলেন এবং নিমিষেই চলে গেলে। আমি কিছুই বুঝে উঠতে পারিনি। এসময় আমি যে চিৎকার করব সে শক্তিও হারিয়ে ফেলি। আমি দ্রুত ম্যানেজারের কাছে যাই, বিষয়টি অবগত করি।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা সোনালী ব্যাংকের ম্যানেজার আসাদুজ্জামান রাজু বলেন, ওই মহিলা নিজেই ওই লোককে টাকা দিয়েছেন। এখানে আমাদের কোনো করণীয় নেই।

ব্যাংকে সিসি ক্যামেরা আছে কি-না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ব্যাংকে কোনো সিসি ক্যামেরা নেই। সিসি ক্যামেরার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বেশ কয়েকবার বলা হয়েছে। তবে এখনও কোনো ব্যবস্থা নেননি তারা।

জানতে চাইলে হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এরশাদুল আলম বলেন, বিষয়টি জানা নেই। তবে অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ভুক্তভোগী প্রাথমিক শিক্ষিকার আহাজারির ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 49 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*