Home » সর্বশেষ সংবাদ » বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান, গৃহকর্মী হত্যার ২৩ দিন পর বৃদ্ধ গ্রেপ্তার

বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান, গৃহকর্মী হত্যার ২৩ দিন পর বৃদ্ধ গ্রেপ্তার

গাজীপুর প্রতিনিধি // গাজীপুরের টঙ্গীর বনমালা এলাকায় বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় স্বপ্না রায় ওরফে ফাতেমা আক্তার সুমি নামে গৃহকর্মীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করেন এক বৃদ্ধ। হত্যাকাণ্ডের ২৩ দিন পর অভিযান চালিয়ে গতকাল বুধবার রাতে মৌলভীবাজার থেকে ওই বৃদ্ধকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার হওয়া ওই বুদ্ধের নাম মো. সৈজ উদ্দিন খান (৭০) ঝালকাঠির নাগপাড়া গ্রামের মৃত তুরাব আলী খানের ছেলে।

গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) মোহাম্মদ ইলতুৎমিশ জানান, ৭-৮ বছর আগে নিহত স্বপ্না ওরফে ফাতেমা আক্তার সুমি হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করেন। পরে টঙ্গীর বনমালা এলাকায় বিভিন্ন মেসে রান্না করা খাবার সরবরাহ করে জীবিকা নির্বাহ করছিলেন। গত ১৬ মে সকাল সোয়া ৬টায় সুমি বাসা থেকে কাজের উদ্দেশ্যে বের হন। তিনি টঙ্গী পূর্ব থানার দত্তপাড়া হাউজ বিল্ডিংয়ের স্থানীয় শাহাদাতের বাড়ির সামনে বনমালা রোডের পাকা রাস্তার ওপর পৌঁছালে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা আসামি সৈজ উদ্দিন হাতে থাকা ধারালো চাকু দিয়ে সুমিকে তার ডান পায়ের উরুতে কোপ মেরে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করেন।

পরে পথচারী ও স্থানীয় লোকজন সুমিকে টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরদিন এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর মেয়ে তুলি বাদী হয়ে টঙ্গী পূর্ব থানায় মামলা দায়ের করেন।

মোহাম্মদ ইলতুৎমিশ জানান, মামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত আসামিকে শনাক্ত ও গ্রেপ্তারের লক্ষ্যে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় সৈজ উদ্দিনের অবস্থান শনাক্ত করে পুলিশ। পরে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা থানার গৌবিন্দপুর গ্রামের পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের সামনে অভিযান চালিয়ে নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করা অবস্থায় সৈজ উদ্দিন খানকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যমতে, দত্তপাড়া ইসলামপুরের আতাউর রহমানের বাড়ির ভাড়াটিয়া তার ছেলের স্ত্রী জাহানারা বেগমের বসত ঘরের রান্না ঘরের সেডের উপর থেকে হত্যার কাজে ব্যবহৃত রক্ত মাখা চাকু উদ্ধার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত সৈজ উদ্দিন জানান, ফাতেমা আক্তার সুমিকে তিনি পছন্দ করতেন। এজন্য তাকে বিয়ের প্রস্তাব দিলে সুমি তা প্রত্যাখান করায় ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে হত্যা করার পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা অনুসারে  সুমিকে ডান পায়ের উরুতে ধারালো চাকু দিয়ে গুরুতর আঘাত করে পালিয়ে যান। পরবর্তীতে আসামি জানতে পারেন স্বপ্না মারা গেছে।

পাঠকের মতামত...

Print Friendly, PDF & Email
Total Page Visits: 22 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*